মোহাম্মদ বেলায়েত হোসেন

রাজনৈতিক দলের পুনর্গঠন একটি চলমান প্রক্রিয়া এবং এটি গুরুত্বপূর্ণও বটে। নতুন নেতৃত্ব সৃষ্টি করার জন্য রাজনৈতিক দলের পুনর্গঠনের কোনো বিকল্প নেই। কেননা শরীরে নতুন রক্ত তৈরি না হলে যেমন মানুষ বাঁচে না, তেমনি রাজনৈতিক দলে নতুন নেতৃত্ব তৈরি না হলেও সেই রাজনৈতিক দলের বিকাশ ঘটে না। আন্দোলনে কাক্সিত ল্েয পৌঁছতে না পেরে, বিএনপি অতীতেও দল পুনর্গঠনে হাত দিয়েছে, বর্তমানেও পুনর্গঠন প্রক্রিয়া চলছে। কিন্তু অতীতে পুনর্গঠনের মাধ্যমে একটি শক্তিশালী বিএনপির আত্মপ্রকাশ কাযের্েত্র পরিলতি হয়নি। সুদূরপ্রসারী কোনো চিন্তার প্রতিফলন বিএনপির পুনর্গঠন ল করা যায়নি। বিভিন্ন বিতর্কিত কাজের মাধ্যমে প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে বিএনপির পুনর্গনঠন। যার জন্য উপমহাদেশের অন্যতম রাজনৈতিক দল হয়েও রাজপথ থেকে বিএনপিকে বার বার ফিরে আসতে হচ্ছে প্যাভিলিয়নে। অবশ্য সরকারের স্বৈরাচারী কায়দায় দমন-পীড়নও এর জন্য কম দায়ী নয়। বিএনপির শুভাকাক্সী বিশিষ্ট ব্যক্তিরা, দলটির নেতাদের নানা নেতিবাচক অভিধায় অভিহিত করছেন।নতুন নেতৃত্ব তৈরি না হওয়ার কারণেই, বিএনপিকে লজ্জাজনক অপবাদ হজম করতে হচ্ছে। অথচ বিএনপিতে রয়েছে তরুণ নেতৃত্বের সমারোহ, যা অন্য কোনো রাজনৈতিক দলে তেমন দেখা যায়নি। এ কথা নির্দ্বিধায় বলা যায়, দল পুনর্গঠনে ভুলের খেসারতই বিএনপিকে আজ দিতে হচ্ছে। পুনর্গঠনের সুযোগে জনবিচ্ছিন্ন, রাজনীতিবিমুখ, ব্যবসায়ী ও ভিতু এবং চাটুকার কিছু লোক দলের গুরুত্বপূর্ণ পদ-পদবি বাগিয়ে নেয়। কিন্তু দল যখন অধিকার আদায়ের লড়াইয়ে রাজপথে অবতীর্ণ হয়েছে, ঠিক তখন ওই জনবিচ্ছিন্ন, ভীতু ও রাজনীতিবিমুখ এবং চাটুকারা ‘গা’ বাঁচাতে নিরাপদ আশ্রয়ে চলে গেছেন। ফলে অভিভাবকহীন কর্মীরা প্রতিপ ও পুলিশের বেধড়ক পিটুনি খেয়ে দিগি¦দিক শূন্য হয়ে পড়েছেন। যার জন্য বিএনপির আন্দোলন বার বার হোঁচট খাচ্ছে। এটাই কার্যত বিএনপির রাজনীতির একটি বাস্তবতা। তৃণমূলের কিছু নেতাকর্মীর অদম্য সাহস, নিষ্ঠা ও একাগ্রতায় বিএনপি তার রাজনৈতিক অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে সমর্থ হচ্ছে। একটি রাজনৈতিক দলের মূল শক্তি এর সাংগঠনিক ভিত, শক্তিশালী সাংগঠনিক অবস্থান ছাড়া কোনো জোরালো আন্দোলন-সংগ্রাম যেমন গড়ে তোলা যায় না, তেমনি সেই আন্দোলনকেও কাক্সিত ল্েয নিয়ে যাওয়া সম্ভব হয় না। প্রশ্নাতীত জনসমর্থন থাকার পরও, শুধু সাংগঠনিত দুর্বলতার কারণে বিএনপি সেই জনসমর্থন কাজে লাগাতে সমর্থ হচ্ছে না। তা ছাড়া সাংগঠনিক দুর্বলতার কারণেই দলে একে অপরের প্রতি সন্দেহ-অবিশ্বাসসহ আরো নানা ধরনের জটিলতা দেখা দিয়েছে। কাজেই সাংগঠনিক ভিত মজবুত করতে লোক দেখানো নয়, বিএনপিকে বাস্তবধর্মী উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে। অতীতে সাংগঠনিকেে ত্র কী কী ভুল হয়েছে তা পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে বিচার-বিশ্লেষণ করতে হবে।আমরা দেখেছি, বিগত দিনের দল পুনর্গঠনের নামে একজনকে একাধিক পদ দেয়া হয়েছে, জুনিয়ারকে বসানো হয়েছে সিনিয়রের জায়গায় আর সিনিয়ারকে বসানো হয়েছে জুনিয়রের স্থানে, ছাত্রদল থেকে সরাসরি বিএনপিতে পদায়ন করা হয়েছে, আবার যুবদল থেকে পদায়ন করা হয়েছে ছাত্রদলে। রাজনৈতিক ভাবাপন্ন, ত্যাগী, নিষ্ঠাবান ও সাহসীদের অবমূল্যায়ন করে ব্যবসায়ী, চাটুকার ও অরাজনৈতিক ব্যক্তিদের আনা হয়েছে লাইমলাইটে। নিয়মিত ছাত্রদের পদায়ন না করায় গত ৯ বছরেও চাঙ্গা করা সম্ভব হয়নি বিএনপির ভ্যানগার্ড বলে খ্যাত জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলকে। তা ছাড়া অতি গুরুত্বপূর্ণ জায়গায়ও পুনর্গঠনের নামে করা হয়েছে পকেট কমিটি, অফিস কমিটি। আর এসব কমিটি অনুমোদন করানো হয়েছে সহজ-সরল ও সাগরসম মনের অধিকারী বিএনপি চেয়ারপারসনের কাছ থেকে। এর দায় কিছুতেই এড়াতে পারেন না বিএনপির রাজনৈতিক কার্যালয়ে যারা কাজ করেন তারা। কেননা তাদের ওপরই অনেকটা নির্ভর করেন বিএনপি চেয়ারপারসন।এসব কথা এ জন্যই বলা হচ্ছে, বিএনপি বর্তমানে একটি পুনর্গঠন প্রক্রিয়ার মধ্যে আছে। কাজেই পুনর্গঠনকে দিতে হবে গুরুত্ব। কাজের লোকদের দিতে হবে কাজ করার সুযোগ। পদ-পদবি নিয়ে যারা ঘরে বসে থাকবে নাÑ তাদেরকে দিতে হবে গুরুত্বপূর্ণ সাংগঠনিক পদ। যেকোনো মূল্যে জাতীয়তাবাদী ছাত্র ও যুবদলকে করতে হবে চাঙ্গা। এেে ত্র নিয়মিত ছাত্রদের প্রাধান্য দিয়ে গঠন করতে হবে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের কমিটি এবং সেটা যত সময়ই লাগুক। ছাত্রদলের ত্যাগী, সাহসী ও নিষ্ঠাবানদের বাছাই করে আনতে হবে যুবদলে, রাজপথ কাঁপাতে পারে-যুবদলের এমন ত্যাগী ও সাহসীদের পদায়ন করতে হবে বিএনপির গুরুত্বপূর্ণেে ত্র। তা ছাড়া স্বেচ্ছাসেবক দলেও পদায়ন করা যায়, যুবদলের ত্যাগী ও সাহসীদের বাছাই করে। পরিবর্তিত পরিস্থিতি বিবেচনায় এনে, গঠনতন্ত্র পরিবর্তন করার মাধ্যমে বিএনপির সিনিয়রদের পদায়নের সুযোগ তৈরি করতে হবে। তা ছাড়া তথ্যপ্রযুক্তির যুগের কথা মাথায় রেখে, ‘জাতীয়তাবাদী অনলাইন দল’ নামে একটি সহযোগী সংগঠনও অন্তর্ভুক্ত করতে হবে বিএনপির গঠনতন্ত্রে। গড়ে তুলতে হবে জাতীয়তাবাদী মহিলা দল ও যুব মহিলা দলকে যুগোপযোগী করে। সর্বোপরি তৃণমূলকে প্রাধান্য দিয়ে স্বচ্ছ, জবাবদিহিতা এবং আলাপ-আলোচনার ভিত্তিতে সম্পন্ন করতে হবে দল পুনর্গঠন প্রক্রিয়া, যাতে এবারো প্রশ্নবিদ্ধ না হয়, বিএনপির সাংগঠনিক শক্তি ও পুনর্গঠন প্রক্রিয়া।কার্যত রাজনীতিতে কোন কাজটি আজ, এখন করতে হবে; আবার কোন কাজটির জন্য করতে হবে অপো, এটি নির্ধারণ করা জরুরি। দৃশ্যত বর্তমান সময়টি বিএনপির জন্য যেমন ক্রান্তিময়, আবার রাজনৈতিকভাবে গুরুত্বপূর্ণও বটে। দৃশ্যত বিএনপির নির্বাচন ও আন্দোলনসহ যেকোনো অতি গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করার সময় এটি নয়। কেননা বিএনপি চলমান সময়ে অনেকটা নিজের ঘর গোছানোর পর্যায়ে আছে। এই অবস্থায় বিএনপির কোনো গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক সিদ্ধান্তে বেনিফিশিয়ারি হবে তার প্রতিপ শক্তি। সাংগঠনিত ভীত মজবুত করে সিদ্ধান্ত নিলে লাভবান হবে বিএনপি।আওয়ামী লীগ এখন অনেকটা সুবিধাজনক পর্যায়ে আছে। তাদের গায়ে এখন আর শেয়ার মার্কেট কেলেঙ্কারির দুর্গন্ধ নেই। নেই সোনালী ব্যাংক লোপাটের তকমা; মানুষ ভুলে গেছে এমএলএম ব্যবসার নামে হাজার কোটি টাকা আত্মসাতের ইতিহাস। চাপা পড়ে গেছে হেফাজতের সমাবেশের সেই নারকীয় হত্যাকাণ্ড। মানুষের স্মৃতিতে নেই দ্রব্যমূল্য ও তেল-গ্যাস-বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির কথা। যার জন্য বর্তমান সময়টি আওয়ামী রাজনীতির জন্য অত্যন্ত ভালো সময়। এখন তারা সব কিছু পেছনে ফেলে একটি নতুন নির্বাচনের পথে হাঁটবেÑ এতে কোনো সন্দেহ নেই। কিন্তু বিএনপি তখনই নির্বাচনের কথা ভাববে, যখন দলটি তার সব পারিপার্শ্বিক অবস্থা কাটিয়ে উঠবে। লেখক : মোহাম্মদ বেলায়েত হোসেন রাজনৈতিক বিশ্লেষক"/>
Fatal error: Uncaught Error: Call to undefined function get_youtube_thumb() in /home/designgh/domains/amaderkatha.com/public_html/wp-content/themes/amaderkatha/functions.php:41 Stack trace: #0 /home/designgh/domains/amaderkatha.com/public_html/wp-includes/class-wp-hook.php(287): og_meta_tags('') #1 /home/designgh/domains/amaderkatha.com/public_html/wp-includes/class-wp-hook.php(311): WP_Hook->apply_filters(NULL, Array) #2 /home/designgh/domains/amaderkatha.com/public_html/wp-includes/plugin.php(478): WP_Hook->do_action(Array) #3 /home/designgh/domains/amaderkatha.com/public_html/wp-includes/general-template.php(3009): do_action('wp_head') #4 /home/designgh/domains/amaderkatha.com/public_html/wp-content/themes/amaderkatha/header.php(7): wp_head() #5 /home/designgh/domains/amaderkatha.com/public_html/wp-includes/template.php(730): require_once('/home/designgh/...') #6 /home/designgh/domains/amaderkatha.com/public_html/wp-includes/template.php(676): load_template('/home/designgh/...', true, Array) #7 /home/designgh/domains/a in /home/designgh/domains/amaderkatha.com/public_html/wp-content/themes/amaderkatha/functions.php on line 41