আমাদের কথা ডেস্ক :

লোকমুখে প্রচলিত রয়েছে, একসঙ্গে বেশি কলা খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। এটাও বলা হয়, একসঙ্গে ৭টি কলা আপনার মৃত্যু ডেকে আনতে পারে। প্রশ্ন করতে পারেন, এটি কতটা সত্য? কলা পৃথিবীর সবচেয়ে পছন্দনীয় ফল। যার মধ্যে প্রচুর ভিটামিন এবং খনিজ উপাদান রয়েছে। এ প্রশ্নও হতে পারে, এই ফল যদি সবচেয়ে বেশি পছন্দনীয় হয় তবে মৃত্যুর কারণ হবে কেন? কার্ল প্লিংটন নামের এক প্রসিদ্ধ স্বাস্থ্যবিদ বিষয়টি নিয়ে গবেষণা করেছেন। গবেষণায় তিনি এমনটাই পেয়েছেন। একসঙ্গে ছয়ের অধিক কলা মৃত্যুর দিকে নিয়ে যেতে পারে আপনাকে। এর কারণ হলো, ৭টি কলা খাওয়ার ফলে আপনার দেহের পটাশিয়ামের মাত্রা বেড়ে যেতে পারে। যা আপনার দেহের স্বাভাবিকতাকে এলোমেলো করে দিবে।
পটাশিয়াম দেহের জন্য কতটুকু ক্ষতিকর?
লন্ডনের সেন্ট জর্জেস হাসপাতালে বিশেষজ্ঞ ক্যাথরিন কোলজ বলেন, পটাশিয়াম আমাদের দেহের গুরুত্বপূর্ণ বস্তু। এটি আমাদের শরীরের বিভিন্ন স্থানে লুকিয়ে থাকে। তিনি বলেন, এই পটাশিয়াম আমাদের হৃদস্পন্দন ঠিক রাখে। ডায়াবেটিকসকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। এ কারণে দেহে পটাশিয়ামের পরিমাণ যদি বেড়ে যায় বা নির্দিষ্ট পরিমাণ থেকে কমে যায় তবে হৃদস্পন্দন অস্বাভাবিক মাত্রায় চলে যায়। পেটের নানারকম পীড়া দেখা দেয়।
ক্যাথরিন বলেন, একজন স্বাস্থ্যসচেতন ব্যক্তির জন্য কথা ক্ষতিকর কোনো খাবার নয়।
যুক্তরাজ্যের ন্যাশনাল হেলথ সোর্সের গবেষণা অনুযায়ী, একজন যুবকের প্রতিদিন ৩৫০০ মিলিগ্রাম পটাশিয়াম প্রয়োজন। ১৮০ গ্রাম ওজনের একটি কলার ভেতর পটাশিয়াম থাকে ৬৫০ মিলিগ্রাম। এই হিসাবে একজন যুবককে দিনে দেহের প্রয়োজনীয় পটাশিয়ামের জন্য ৬টি কলা খাওয়া উচিত। তবে একসঙ্গে নয়।
তবে যারা কিডনি সমস্যায় ভুগছেন এসব খাবার থেকে তাদের দূরে থাকা ভালো। যার মধ্যে পটাশিয়ামের পরিমাণ বেশি। -বিবিসি উর্দু থেকে