স্টাফ রিপোর্টার :
একুশে চেতনা পরিষদের সভাপতি বরেণ্য ভাষা সৈনিক আহমদ রফিক বলেছেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সন্তান ভাষা সৈনিক এডভোকেট আবদুস সামাদ অনন্য গুণের অধিকারী ছিলেন। তিনি ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে সারাজীবন মানুষের জন্য দেশের জন্য নিবেদিত ছিলেন। তিনি ভাষা সৈনিক হিসেবে অসাধারণ জীবন যাপন করেছেন। উনার রচিত গ্রন্থ নতুন প্রজন্মকে প্রেরণা দিবে।
গত সোমবার ঢাকায় মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘরে ভাষাসৈনিক এডভোকেট আবদুস সামাদ ফাউন্ডেশন আয়োজিত বিশিষ্ট রাজনীতিক, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক, ভাষা সৈনিক এডভোকেট আব্দুস সামাদ এর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও আব্দুস সামাদ রচিত “সোভিয়েত ইউনিয়নে ৩৫ দিন” গ্রন্থের মোড়ক উন্মাচন অনুষ্ঠানে অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

pic - 4
ভাষা সৈনিক ও  একুশে চেতনা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ও বরেণ্য সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব কামাল লোহানীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ব্যারিষ্টার আমির-উল ইসলাম, রাজনীতিক পংকজ ভট্টাচার্য্য, লেখক কলামিষ্ট সৈয়দ আবুল মকসুদ, ভাষা সৈনিক. জসীম উদ্দিন আহমেদ, এ.আর শাহজাহান ইউসুফ, আব্দুল করিম পাঠান, অধ্যাপক ফুলে ভূষণ, ডি এইচ মুনীর উদ্দিন, আব্দুল জলিল, রেজাউল করিম প্রমুখ। ভাষা আন্দোলন গবেষণা কেন্দ্র ও জাদুঘরের নির্বাহী পরিচালক এ.আর মাহবুব এর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে সূচনা বক্তব্য রাখেন ভাষা সৈনিক এডভোকেট আবদুস সামাদ ফাউন্ডেশন এর ট্রাষ্টি ও বিশিস্ট আলোকচিত্রী ওবায়েদুল্লাহ মামুন। অনুষ্ঠানে ভাষা সৈনিক এডভোকেট আব্দুস সামাদ এর জীবনী পাঠ ও কবিতা আবৃত্তি করেন আবৃত্তি শিল্পী আল আমীন শাহীন। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ফটোগ্রাফিক সোসাইটির সভাপতি আশরাফ আহমেদ, সেক্রেটারী জোনরেল ইউসুফ তুষার, নেতৃবৃন্দের মধ্যে গোলাম মোস্তফা, খালেদ মাহমুদ মিঠু, চঞ্চল মাহমুদ, বাংলাদেশ টেলিভিশনের বার্তা সম্পাদক শাহ শেখ মজলিশ ফুয়াদ, রাজনীতিক এম এ করিম, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ফটোজার্নালিষ্ট  এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম শাহজাদা সহ গণ্য মান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, ভাষাসৈনিক এডভোকেট আব্দুস সামাদ ছিলেন প্রগতিশীল অসাম্প্রদায়িক চেতনার বরেণ্য রাজনীতিক, তিনি জনগণের সম্পৃক্ততায় অনন্য চরিত্রের অধিকারী উদার চিত্তের সহজ সরল ব্যক্তিত্ব ছিলেন। তিনি সারাজীবন মানুষের জন্য দেশের জন্য নিবেদিত ছিলেন। তিনি যে অবদান রেখে গেছেন সেই অবদান স্মরনীয় হয়ে থাকবে।