রেলের অগ্রীম টিকিট বিক্রি শুরু, শিডিউল বিপর্যয় না হওয়ার ঘোষণা

15 September, 2015 : 7:44 am ৩০

আমাদের কথা ডেস্ক :

ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয় হবে না বলে জানিয়েছেন রেলপথমন্ত্রী মো. মুজিবুল হক। এছাড়াও টিকেট কালোবাজারি রোধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি। মঙ্গলবার সকালে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে টিকেট বিক্রি পরিদর্শন শেষে মন্ত্রী সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন। ঈদুল আজহা উপলক্ষে মঙ্গলবার থেকে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার বিক্রি হচ্ছে ২০ সেপ্টেম্বরের টিকিট। অগ্রিম টিকিট বিক্রি হবে ১৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি হবে। একজন ব্যক্তি সর্বোচ্চ চারটি টিকিট কিনতে পারবেন। রেলমন্ত্রী বলেন, ঈদুল আজহা উপলক্ষে ১৬ সেপ্টেম্বর ২১ সেপ্টেম্বরের, ১৭ সেপ্টেম্বর ২২ সেপ্টেম্বরের, ১৮ সেপ্টেম্বর ২৩ সেপ্টেম্বরের ও ১৯ সেপ্টেম্বর ২৪ সেপ্টেম্বরের টিকিট দেওয়া হবে। ঢাকায় কমলাপুর ও চট্টগ্রাম স্টেশন থেকে ঈদ উপলক্ষে ট্রেনের অগ্রিম টিকেট পাওয়া যাচ্ছে। ঈদের পর ফিরতি টিকিট ২৩, ২৪, ২৫, ২৬ ও ২৭ সেপ্টেম্বর যথাক্রমে ২৭, ২৮, ২৯, ৩০ সেপ্টেম্বর ও ১ অক্টোবর পাওয়া যাবে। রাজশাহী, খুলনা, রংপুর, দিনাজপুর ও লালমনিরহাট স্টেশন থেকে ঈদ পরবর্তী টিকিট বিক্রি করা হবে।

রেলপথমন্ত্রী মুজিবুল হক বলেন, ঈদের আগে তিন দিন এবং ঈদের পরে সাতদিন স্পেশাল ট্রেন সার্ভিস পরিচালিত হবে। রেলওয়ের সব সময় যাত্রীদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে সীমিত ক্ষমতা দিয়ে সর্বোচ্চ সেবা দেওয়া হবে। রেলযাত্রী পরিবহনে কোনও সংকট থাকবে না। বর্তমানে ৮৮৬টি যাত্রীবাহী কোচের সঙ্গে আরও ১৩৮টি কোচ যোগ হয়েছে। ১৯৯ ইঞ্জিনের সঙ্গে আরও ২২৪টি ইঞ্জিন যুক্ত করা হচ্ছে। ঈদে উপলক্ষে দৈনিক আড়াই লাখ যাত্রী পরিবহন করা হবে। এরজন্য প্রয়োজন হলে অতিরিক্ত ট্রেনের মাধ্যমে যাত্রী পরিবহণ করা হবে। এরইমধ্যে রেলের সব কর্মকর্তা-কর্মচারীর ছুটি বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। কালোবাজারি রোধে সর্বোচ্চ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। যদি রেলের কোনও কর্মকর্তা-কর্মচারী কালোবাজারির সঙ্গে সম্পৃক্ত হয় তাদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কমলাপুরে নারী টিকিট কাউন্টার বাড়নো প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, বর্তমানে ২০টি কাউন্টারে টিকিট বিক্রি হয়। এরমধ্যে দুটি নারী কাউন্টার করা হচ্ছে। যদি যাত্রীদের চাহিদা বাড়ে প্রয়োজনে নারীদের জন্য আরও কাউন্টার বাড়ানো হবে। আগামী বছর ঈদের আগেই আরও রেলবহরে ২৭০টি নতুন কোচ যুক্ত হবে বলেও জানান তিনি।

[gs-fb-comments]