ভারতের উত্তর-পূর্ব আসামের বাঙালি অধ্যুষিত কাছাড় জেলার শিলচরে স্থাপন করা হলো সাম্যের কবি কাজী নজরুল ইসলামের প্রতিকৃতি। শিলচরের পার্ক রোডে গান্ধীবাগের শেষ প্রান্তে কবির ১০ ফুট উচ্চতার এই পূর্ণাঙ্গ প্রতিকৃতি রোববার উন্মোচন করেন বাংলাদেশের নজরুল একাডেমির সর্বভারতীয় সম্পাদক ও কবির ভ্রাতুষ্পুত্র কাজী মোজাহার হোসেন। এ সময় কাজী মোজাহার হোসেন বলেন, কাজী নজরুল ইসলাম সাম্যের কবি, মানবতার কবি হওয়া সত্ত্বেও ব্রিটিশসহ দেশের একদল মানুষ তাকে শুধু বিদ্রোহী কবি বলে এক জায়গায় আটকে দেওয়ার চেষ্টা চালিয়েছিলেন; কিন্তু তারা তা পারেননি। কাজী নজরুল এগিয়ে চলেছিলেন, লিখেছিলেন সাম্যের গান। মোজাহার হোসেন আরও বলেন, নজরুল কারও দাসত্ব করেননি। তিনি বিশ্বের কবি। আজ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে তার কবিতাগুলো নানা ভাষায় প্রকাশিত হচ্ছে। এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বরাক উপত্যকা বঙ্গসাহিত্য ও সংস্কৃতি সম্মেলনের কাছাড় জেলার সভাপতি তৈমুর রাজা চৌধুরী, সাবেক সংসদ সদস্য কবীন্দ্র পুরকায়স্থ, সাবেক বিধায়ক দীপক ভট্টাচার্য, শিলচর পৌরসভার পুরপতি নীহারেন্দ্রনারায়ণ ঠাকুর, নজরুল একাডেমির শিলচর শাখার সভাপতি পার্থসারথি চক্রবর্তী, সম্পাদক দেবাশীষ চন্দ্র প্রমুখ। বাংলাদেশের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের এই প্রতিকৃতি উত্তর-পূর্ব ভারতে সবচেয়ে উঁচু। শিলচর শহরের বাসিন্দাদের আর্থিক সহায়তায় এই প্রতিকৃতি নির্মাণ করা হয়। প্রায় চার লাখ রুপি ব্যয়ে ফাইবার গ্গ্নাস দিয়ে এই প্রতিকৃতি নির্মাণ করেছেন কলকাতার ভাস্কর গৌতম পাল।