এবার মৌলভীবাজারের রাজনগরে এক কলেজ ছাত্রীকে প্রকাশ্যে মারধর করলো পারভেজ আহমদ (২৫) নামের এক বখাটে যুবক।
মঙ্গলবার মৌলভীবাজার-ফেঞ্চুগঞ্জ সড়কের একটি বাসে এক কলেজ ছাত্রীকে মারধর করলে তিনি জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। পরে বাস যাত্রীদের সহযোগিতায় স্থানীয় লোকজন তাকে রাজনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য ভর্তি করায়।
রাজনগর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ওই ছাত্রী সাংবাদিকদের জানায়, রাজনগর উপজেলার দুগাঁও গ্রামের আহাদ আলীর ছেলে পারভেজ আহমদ (২৩) বেশ কিছুদিন ধরে ওই কলেজ ছাত্রীর সঙ্গে সম্পর্ক গড়ার চেষ্টা করছিল। মঙ্গলবার সকালে ওই ছাত্রী মৌলভীবাজার সরকারী কলেজে অনার্স প্রথম বর্ষের পরীক্ষা দিয়ে বাড়ি ফেরার জন্য মৌলভীবাজার শহরের চাঁদনীঘাট বাসস্ট্রেন্ড থেকে রাজনগরগামী একটি বাসে উঠে। বাসটি ছাড়ার কিছুক্ষন পরেই ওই যুবক বাসে উঠে বাসের সামনের সিটে বসা ওই ছাত্রীকে চড়-থাপ্পড় মারতে থাকে। বাসের লোকজন মেয়েটিকে কেন মারছে জানতে চাইলে তার ‘গার্ল ফ্রেন্ড’ বলে পরিচয় দেয়। এ সময় কলেজ ছাত্রী বাস যাত্রীদের সাহায্য চাইলে যাত্রীরা ওই ছাত্রীকে রক্ষায় এগিয়ে আসেন। এ সময় ওই যুবকটি ফোনে দা’ নিয়ে রাজনগরের মুন্সীবাজারে আসার জন্য তার লোকজনকে আসতে বললে বাস যাত্রী ফারুক আহমদ এগিয়ে এসে কলেজ ছাত্রীকে বাসের পেছনের সিটে নিয়ে যায়। পরবর্তীতে সেখানে  গিয়েও বখাটে যুবক পারভেজ আহমেদ ছাত্রীটিকে আবারও মারধর করতে থাকে। এতে ওই কলেজ ছাত্রী জ্ঞান হারিয়ে ফেললে বাসের অন্য যাত্রীরা ওই বখাটে যুবককে আটকে মুন্সীবাজার নিয়ে আসেন। বাসটি মুন্সীবাজার পৌঁছার পর বাস যাত্রীদের সহযোগিতায় স্থানীয় লোকজন ছাত্রীটিকে রাজনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে চিকিৎসার ব্যবস্থাকালে ওই বখাটে যুবক পারভেজ পালিয়ে যায়।qqqqqqqqqqqqqqqqqqqqq
এব্যাপারে ওই দিন বিকাল পৌনে ৪ টায় ওই ছাত্রী রাজনগরের ইউএনও বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন। রাজনগরের ইউএনও আইনুর আক্তার জানান, থানার ওসি সাহেবকেও বলেছি দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য।