স্টাফ রিপোর্টার :

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের সুইচ ইয়ার্ডে সিটি বিস্ফোরণ ও অগ্নিকান্ডে বন্ধ হয়ে যাওয়া ৬টি ইউনিটের মধ্যে ৫টি ইউনিটে বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরু হয় শনিবার ভোর থেকে। হয়েছে। দুর্ঘটনার পর ১০ ঘন্টা পর উইনিটগুলো চালু হয়। তবে এখনো বন্ধ রয়েছে ১৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন বৃহৎ ইউনিট-৫। এতে করে জাতীয় গ্রীডে ১৫০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যাহত হচ্ছে। বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কারিগরি বিভাগ সূত্রে জানা যায়, বিদ্যুৎ কেন্দ্রের সুইচ ইয়ার্ডে সিটি বিস্ফোরণের এক ঘন্টা পর শুক্রবার রাত ৯টায় প্রথমে ১৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন ইউনিট-৩ উৎপাদনে ফিরে আসে। পরবর্তিতে শনিবার ভোর রাতের মধ্যে পর্যায়ক্রমে বেসরকারী কুইক রেন্টালের ৮০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন এগ্রিকো, ৫৫ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন প্রিসিশন এনার্জি লিমিটেড,৫৩ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন ইউনাইটেড পাওয়ার ও ৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন মিডল্যান্ড পাওয়ার প্লান্ট ইউনিটটি পূনরায় বিদ্যুৎ উৎপাদনে ফিরে আসে। তবে এখনো বৃহৎ ইউনিট-৫ চালু করা সম্ভব হয়নি।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার রাত ৮টায় হঠাৎ বিকট শব্দ হয়ে আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন কোম্পানীর সুইচ ইয়ার্ডে ৫নং ইউনিটের বাসবারের কারেন্ট ট্রান্সফরমার(সিটি) আগুন ধরে যায়। এ সময় ১৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন ইউনিট-৩ ও ৫ এবং এই ইউনিটের সাবস্টেশনের সাথে সংশ্লিষ্ট বেসরকারী কুইক রেন্টালের ৪টি ইউনিটসহ মোট ৬টি ইউনিট একযোগে বন্ধ হয়ে যায়। বিদ্যুৎ উৎপাদনে নেমে আসে বিপর্যয়। জাতীয় গ্রীডে সরবরাহ হ্রাস পায় ৫৩০ মোগাওয়াট বিদ্যুৎ। তাৎক্ষণিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের নিজস্ব ফায়ার ইউনিট ও আশুগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে পৌছে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে।

আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন কোম্পানীর ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী সাজ্জাদুর রহমান জানান, বন্ধ ৬টি ইউনিটের মধ্যে ৫টি ইউনিট চালু করা হয়েছে। ত্রুটি মেরামত করে ৫নং ইউনিট চালু করতে আরো একদিন সময় লাগতে পারে।