আমাদের কথা ডেস্ক :

রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হতে ইচ্ছুক বেন কারসনকে ভালোই জবাব দিয়েছে ১২ বছর বয়সী ইউসুফ দায়ুর। মুসলমানরা যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হওয়ার যোগ্য নয়, কারসনের এমন মুসলিম-বিদ্বেশি মন্তব্যের জবাব হিসেবে এই বালক বলেছে, সেই হবে যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম মুসলিম প্রেসিডেন্ট। গত সপ্তাহে কারসন এনবিসি মিট দ্য প্রেসে বলেছিলেন, মুসলমানদের ধর্মবিশ্বাস মার্কিন নীতির সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ না হওয়ায় তারা যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হতে পারবে না। মিনেসোটার ইডেন প্রাইরির ইউসুফ তার ২ মিনিট ২০ সেকেন্ডের ভিডিও জবাবে বলে, এটা প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হতে ইচ্ছুক বেন কারসনের জবাব। ইউটিউবে তার ভিডিওটি পোস্ট করেছেন তার মা। ইউসুফ বলে, ‘মি. কারসন কেউ যদি বলে আপনার গায়ের রঙের জন্য আপনি প্রেসিডেন্ট হতে পারবেন না তবে কী হবে? যদি কেউ বলে আপনার বংশের কারণে আপনি প্রেসিডেন্ট হতে পারবেন না তবে কী হবে? কিংবা কেউ যদি বলে আপনার ধর্মবিশ্বাসের জন্য (যেমনটা আপনি আমার প্রতি বলেছেন) আপনি প্রেসিডেন্ট হতে পারবেন না, তবে কী হবে?’ এরপর ইউসুফ জানায়, যখন তার বয়স ছিল ২ বা ৩ বছর, তখনই সে প্রেসিডেন্ট হওয়ার স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছে। সে জানায়, ওই সময়ই সে তার বন্ধুদের বলত, একদিন সে প্রেসিডেন্ট হবে। সে কারসনকে লক্ষ করে বলে, ‘আপনি আসলে আমার স্বপ্ন চুরমার করে দিয়েছেন। কারণ আপনি বলেছেন, কোনো মুসলিম প্রেসিডেন্ট হতে পারবে না।’ এ প্রসঙ্গে ইউসুফ স্মরণ করিয়ে দেয়, অতীতে আফ্রিকান আমেরিকানরা প্রেসিডেন্ট হতে পারবে না বলে বলা হতো। অথচ বর্তমান প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ওই ধারণা ভেঙ্গে দিয়েছেন। আর আমি প্রথম মুসলিম প্রেসিডেন্ট হয়ে চলতি ধারণা ভেঙ্গে দেব। কারসনকে উদ্দেশ করে ইউসুফ বলে, আমি প্রেসিডেন্ট হলে দেখবেন, আমি সবাইকে, সব বর্ণ, সব জাতি, সব ধর্মকে সম্মান করব। আপনি খ্রিস্টান, ইহুদি, মুসলিম, হিন্দু, নাস্তিক কি না তা কোনো ব্যাপারই হবে না।