স্টাফ রিপোর্টার :
গত সোমবার রাতে কসবায় মসজিদে জুম্মার নামাজ পড়াকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষে অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য খুন হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে। প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, কসবা পৌর এলাকার গুরিয়ারুপ গ্রামে মসজিদে জুম্মার নামাজের জামাতকে কেন্দ্র করে একই গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য হাজী আবু নাসের গ্রুপের সাথে ইমাম হোসেন গ্রুপের লোকজনের কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ইমাম গ্রুপের লোকজন দা, লাঠি সোটা, লোহার রড, টেটা বল্লম নিয়ে নাসির গ্রুপের লোকজনের উপর হামলা চালিয়ে ৩জনকে রক্তাক্ত জখম করে। আহতদেরকে কসবা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে কর্তৃব্যরত চিকিৎসক হাজী আবু নাসের (৬৫)কে মৃত ঘোষণা করেন। অপর আহতরা হচ্ছে: মো. জমসিদ মিয়ার ছেলে কামরুজ্জামান (৩৮) ও রফিক মোড়লের ছেলে নিশাদ মোড়ল (৩০)।
এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী রেহেনা বেগম বাদী হয়ে ২৫ জনকে আসামী করে কসবা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে। পুলিশ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে: মকসুদ মিয়া (৫৫), দৌলত মিয়া (৩৮), মোহাম্মদ আলী (৬৫), ইসমাইল মিয়া (৩৫) ও সোনা মিয়া (৬৫)।
অফিসার ইনচার্জ কসবা থানা মো. মহিউদ্দিন জানান, হত্যা মামলার গ্রেফতারকৃত আসামীদের মঙ্গলবার ব্রাহ্মণবাড়িয়া বিচারিক আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে এবং অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারে জোর প্রচেষ্টা চলছে। উল্লেখ্য, নিহত অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য হাজী আবু নাসেরের ২ ছেলে ও ১ মেয়ে রয়েছে।