নিজস্ব প্র্রতিবেদক ঃ  বাংলাদেশ পুলিশের সর্বোচ্চ কর্মকর্তা ইন্সপেক্টর জেনারেল অব পুলিশ
(আই জি পি) এ. কে. এম শহিদুল হক বিপিএম পিপিএম সংশ্লিষ্ট প্রশাসনিক কর্মসূচিতে আজ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আসছেন । তিনি আজ বিকেল ২টায় স্থানীয় পুলিশ লাইন মাঠে জেলা পুলিশের সমাবেশ ও বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধন, পুরস্কার বিতরণ এবং রাত ৮টা ২০ মিনিটে নিয়াজ মোহাম্মদ স্টেডিয়ামে আয়োজিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির আসন অলংকৃত করবেন । এ ছাড়া তিনি বিকেল সোয়া ৫টায় মুক্তিযোদ্ধা ফোয়ারা ও পরে নারী পুলিশ ব্যারাক উদ্বোধন করবেন । সকল কর্মসুচিতে বিশেষ অতিথি থাকবেন আইজিপি পত্নী এবং নারী পুলিশ কল্যাণ সমিতির সভাপতি বেগম শামসুন নাহার । এ বিষয়ে জেলা পুলিশ সুপারের পক্ষ থেকে নিমন্ত্রণ কার্ড বিতরণ করা হয়েছে, অথচ স্থানীয় পর্যায়ের অনেক দৈনিক ও সাপ্তাহিক পত্রিকার সম্পাদক এবং ঢাকা থেকে প্রকাশিত বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকের জেলা প্রতিনিধিগণ জেলা পুলিশের এই নিমন্ত্রণ কার্ড পাওয়া থেকে বঞ্ছিত হয়েছেন । গতকাল সন্ধ্যায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের মাধ্যমে স্থানীয় পর্যায়ে দায়িত্বরত বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেল প্রতিনিধি, প্রেসক্লাবভুক্ত কয়েকটি স্থানীয় দৈনিক পত্রিকার সম্পাদক, কিছু সংখ্যক জাতীয় দৈনিকের প্রতিনিধি, কয়েকটি অনলাইন পত্রিকার প্রতিনিধিকে জেলা পুলিশের নিমন্ত্রণ কার্ড পৌঁছে দেয়া হয়। প্রেসক্লাবের বর্তমান তালিকার বাইরে থাকা ব্রাহ্মণবাড়য়া অনলাইন প্রেসক্লাবসহ অন্যান্য স্থানীয় দৈনিক, সাপ্তাহিক পত্রিকার সম্পাদকসহ জাতীয় দৈনিকের জেলা প্রতিনিধিদের নিমন্ত্রণ কার্ড পৌঁছানো হয়নি । এতে সংশ্লিষ্ট সম্পাদক এবং সাংবাদিকদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে।
পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান পিপিএম (বার) এর নিকট এর কারণ জানতে চাইলে তিনি দৈনিক আজকের ব্রাহ্মণবাড়িয়াকে বলেন, “ সাংবাদিকদের নিমন্ত্রণের বিষয়ে প্রেসক্লাবকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে । তাদের সাথে যোগাযোগ করুন ।” অথচ খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, প্রতিটি নিমন্ত্রণ কার্ডে পুলিশ সুপার কার্যালয়ের কম্পিউটারে মুদ্রিত সাংবাদিকের নাম প্রতিষ্ঠানের নাম ও পদবী যুক্ত কাগজ সাঁটানো আছে । এছাড়া জেলা প্রশাসন এবং পুলিশ প্রশাসন থেকে অন্য কোন বিষয়েও কর্মসূচী সংবলিত নিমন্ত্রণ কার্ড না পৌঁছানোয় যথাযথভাবে সংবাদ ও ছবি প্রকাশ করা যাচ্ছে না ।