আবার খবরের শিরোনামে এলেন ভারতের স্বঘোষিত ধর্মগুরু স্বামী ওম। এক অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত হয়ে জনতার হাতে মার খেয়েছেন তিনি। আর দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে পুরো ঘটনাটি দেখলেন সংগঠকরা।

অব্শ্য এর আগেও অনেক বিতর্কে জড়িয়েছেন এই স্বঘোষিত সাধু। অর্ধনগ্ন নারী শিষ্যর সঙ্গে যোগ বা অন্তর্বাসের উপকারিতা বোঝাতে গিয়ে মার খেয়েছিলেন। এর আগে রিয়েলিটি শো ‘বিগ বস’-এ যোগ দিয়েও নানা বিতর্কে সেধে অংশ নেওয়া তো রয়েছেই।

তবে এবার স্বামী ওম মার খেলেন প্রায় বিনাদোষেই। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এক্সপ্রেস ট্রিবিউন জানিয়েছে, গত শনিবার দেশটির রাজধানী দিল্লির বিকাশনগর এলাকায় নাথুরাম গডসের জন্মজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ করা হয়েছিল ওম স্বামীকে। সঙ্গে ছিলেন আরো অনেক অতিথি।

অনুষ্ঠানের দিন যথাসময়ে হাজির সাধুবাবা। এর মধ্যে অনুষ্ঠান মঞ্চে তাঁকে স্বাগতও জানানো হয়। কিন্তু কিছুক্ষণের মধ্যে আয়োজক ও অনুষ্ঠানে উপস্থিত নারীরা ওম স্বামীর উপস্থিতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে থাকেন। জবাবে প্রত্যুত্তর দিয়ে অনুষ্ঠানস্থলের মঞ্চের দিকে যেতে উদ্যত হন ওম স্বামী।

কিন্তু মঞ্চের কাছাকাছি যেতেই জনতার মধ্যে থেকে কিছু লোক এগিয়ে এসে তাঁকে মারতে শুরু করে। মারের চোটে খুলে আসে চুল। আর কিছু বুঝে ওঠার আগেই বেধড়ক মার খেয়ে অনুষ্ঠান ছেড়ে বেরিয়ে যেতে বাধ্য হন বিগ বসের এই আলোচিত-সমালোচিত প্রতিযোগী।

মারার সময়ে জনতা চিৎকার করছিল, নাথুরামের মতো ব্যক্তির জন্মবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে স্বামী ওমের মতো দূরাচারীকে ঢুকতে দেওয়া হবে না। এ সময় জনতা স্বঘোষিত এই ধর্মগুরুকে বেরিয়ে যেতে বলে।

এদিকে ঘটনাটিকে অনাকাঙ্ক্ষিত বলে ক্ষমা চেয়েছেন আয়োজকরা। আর ওম স্বামীর দাবি, তাঁর জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত মহল এই হামলা চালিয়েছে। তিনি আয়োজকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবেন বলেও জানিয়েছেন সংবাদমাধ্যমকে।