বিডিমর্নিং ডেস্ক-

স্বপ্নের পদ্মা সেতু প্রকল্পের নির্মাণ ব্যয় ও মেয়াদ বাড়িয়েছে সরকার। সেতুর নির্মাণ ব্যয় আট হাজার ২৮৫ কোটি এক লাখ টাকা বাড়িয়ে প্রকল্পটির দ্বিতীয় সংশোধনী অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে এ অনুমাদন দেওয়া হয়।

এছাড়াও একনেকের বৈঠকে ১০টি প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। বৈঠক শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘আজ একনেক বৈঠকে  ৩৩ হাজার ১৮৫ কোটি ৩০ লাখ টাকা ব্যয়ে ছয়টি নতুন ও চারটি সংশোধিত প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নে সরকারি অর্থায়ন ৩০ হাজার ২৯২ কোটি ৫৪ লাখ টাকা, সংস্থার নিজস্ব তহবিল ২২ কোটি ৩২ লাখ ও প্রকল্প সাহায্য খাত থেকে দুই হাজার ৮৭০ কোটি ৪৪ লাখ টাকা ব্যয় করা হবে।’

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘আজকে পদ্মা সেতু প্রকল্পের ব্যয় বাড়িয়ে দ্বিতীয় সংশোধনী অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এতে পদ্মা সেতু প্রকল্পের ব্যয় দাঁড়িয়েছে ২৮ হাজার ২৮৬ কোটি ১৯ লাখ টাকা। এই ব্যয় বেশি, না কম—এটা একদিন মূল্যায়ন করা হবে। এটা অত্যাধুনিক একটি প্রকল্প। এ প্রকল্পের মাধ্যমে আমাদের জিডিপি বাড়বে। দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের স্বপ্ন পূরণ হবে।’

পদ্মা সেতু প্রকল্পের ব্যয় বাড়ানোর কারণ ব্যাখ্যায় মুস্তফা কামাল বলেন, ‘এ ধরনের প্রকল্প আগে আমরা কখনো করিনি। বিশ্বব্যাংকের থেকে বরাদ্দের কারণে সে সময়ে হিসাব করা হয়েছিল। প্রথমে যখন প্রকল্পটির ব্যয় ধরা হয়, তখন কোনোরকম একটি হিসাব করা হয়েছিল। এখন অনেক কাজ বেড়েছে। দেড় কিলোমিটার নদীশাসনের কাজ বেড়েছে। নদীর আয়তন ঠিক রেখে কাজের পরিধি বেড়েছে।’

প্রকল্প সূত্রে জানা যায়, ২০০৭ সালে পদ্মা সেতু প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছিল ১০ হাজার ১৬১ কোটি ৭২ লাখ টাকা। ২০১১ সালে প্রথম সংশোধনীতে ব্যয় বাড়ানো হয় ২০ হাজার ৫০৭ কোটি ২০ লাখ টাকা।

এবার দ্বিতীয় সংশোধনীতে আট হাজার কোটি টাকা বাড়ানো হলো। প্রকল্পটি ২০১৮ সালের মধ্যে বাস্তবায়ন করার কথা।

– See more at: http://www.bdmorning.com/desh/65139#sthash.fROgFCqs.dpuf