গতকাল হারলেই বিদায় নিশ্চিত হয়ে যেত শ্রীলঙ্কার। কিন্তু না। আজই তাদের বিদায় নিশ্চিত হয়নি। বরং ভারতকে সাত উইকেটে হারিয়ে সেমিফাইনালে খেলার আশা বাঁচিয়ে রেখেছে তারা। সেই সাথে টুর্নামেন্টকে জমিয়ে তুলেছে অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজের দল।

গ্রুপ ‘এ’ থেকে ইতোমধ্যে ইংল্যান্ডের সেমিফাইনালে খেলার বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে গেছে। কিন্তু গ্রুপ ‘বি’ থেকে এখনও কারও সেমিফাইনাল নিশ্চিত হয়নি। চারটি দলই ইতোমধ্যে দুইটি করে ম্যাচ খেলেছে। এর মধ্যে প্রত্যেকেই একটি করে জয় পেয়েছে। চারটি দলেরই এখন সেমিফাইনালে খেলার আশা বেঁচে আছে। প্রত্যেকটি দলের আর একটি করে ম্যাচ বাকি আছে।

এখন সেমিফাইনালে খেলতে হলে ওই ম্যাচে শুধু জিতলেই হবে না। নেট রান রেটেরও একটি বিষয় থাকবে। ‘বি’ গ্রুপের ম্যাচে আগামী ১১ জুন দক্ষিণ আফ্রিকার মুখোমুখি হবে ভারত। আর আগামী ১২ জুন পাকিস্তানের মুখোমুখি হবে শ্রীলঙ্কা।

আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ম্যাচে বৃহস্পতিবার লন্ডনের কেনিংটন ওভালে ভারতের দেয়া ৩২২ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ৪৮.৪ ওভারে তিন উইকেট হারিয়ে জয় তুলে নেয় শ্রীলঙ্কা।

দলের পক্ষে দানুশকা গুনাথিলাকা ৭৬, কুসল মেন্ডিস ৮৯, কুসল পেরেরা ৪৭, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ ৫২ ও আসেলা গুনারত্নে ৩৪ রান করেন। ভারতের পক্ষে ভুবনেশ্বর কুমার ১টি উইকেট নেন।

শ্রীলঙ্কা আজ ব্যাটিংয়ে নেমে দলীয় ১১ রানে প্রথম উইকেট হারায়। ইনিংসের পঞ্চম ওভারে ভুবনেশ্বর কুমারের বলে রবীন্দ্র জাদেজার হাতে ধরা পড়েন নিরোশান ডিকওয়েলা। ১৮ বল খেলে সাত রান করেন তিনি।

এরপর দানুশকা গুনাথিলাকা ও কুসল মেন্ডিস জুটি বেঁধে দলকে দারুণভাবে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন। শ্রীলঙ্কার উইকেটের পতন ঘটাতে না পেরে এক পর্যায়ে হাতে বল তুলে নেন ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি।

আর এই ওভারেই উইকেটের পতন হয় শ্রীলঙ্কার। দুই রান নিতে গিয়ে রান আউট হয়ে সাজঘরে ফিরে যান দানুশকা গুনাথিলাকা। ৭২ বল খেলে ৭৬ রান করেন তিনি। গুনাথিলাকা ও মেন্ডিস ১৫৯ রানের পার্টনারশীপ গড়েন।

দানুশকা গুনাথিলাকার পর রান আউট হয়ে ফেরেন কুসল মেন্ডিস। ইনিংসের ৩৩তম ওভারে সাজঘরে ফেরেন তিনি। ফেরার আগে তিনি করেন ৮৯ রান। তারপর কুসল পেরেরার সঙ্গে জুটি বাঁধেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ। ইনজুরিতে পড়ায় ৪৩তম ওভারে স্বেচ্ছায় মাঠ ছাড়েন কুসল পেরেরা। ফেরার আগে ৪৪ বল খেলে ৪৭ রান করেন তিনি।

এরপর আসেলা গুনারত্নে নেমে একটি ঝড়োয়া ইনিংস খেলেন। ২১ বল খেলে ৩৪ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি। আর অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ অপরাজিত থাকেন ৫২ রান করে।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ছয় উইকেট হারিয়ে ৩২১ রান সংগ্রহ করে ভারত। দলের পক্ষে শিখর ধাওয়ান ১২৫, রোহিত শর্মা ৭৮ ও মহেন্দ্র সিং ধোনি ৬৩ রান করেন। শ্রীলঙ্কার পক্ষে লাসিথ মালিঙ্গা ২টি, সুরঙ্গা লাকমল ১টি, নুয়ান প্রদ্বীপ ১টি, থিসারা পেরেরা ১টি ও আসেলা গুনারত্নে ১টি করে উইকেট নেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ফল: সাত উইকেটে জয়ী শ্রীলঙ্কা

ভারত ইনিংস: ৩২১/৬ (৫০ ওভার)

(রোহিত শর্মা ৭৮, শিখর ধাওয়ান ১২৫, বিরাট কোহলি ০, যুবরাজ সিং ৭, মহেন্দ্র সিং ধোনি ৬৩, হার্দিক পান্ডে ৯, কেদার যাদব ২৫*, রবীন্দ্র জাদেজা ০*; লাসিথ মালিঙ্গা ২/৭০, সুরঙ্গা লাকমল ১/৭২, নুয়ান প্রদ্বীপ ১/৭৩, থিসারা পেরেরা ১/৫৪, দানুশকা গুনাথিলাকা ০/৪১, আসেলা গুনারত্নে ১/৭)।

শ্রীলঙ্কা ইনিংস: ৩২২/৩ (৪৮.৪ ওভার)

(নিরোশান ডিকওয়েলা ৭, দানুশকা গুনাথিলাকা ৭৬, কুসল মেন্ডিস ৮৯, কুসল পেরেরা ৪৭, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ ৫২*, আসেলা গুনারত্নে ৩৪*; ভুবনেশ্বর কুমার ১/৫৪, উমেশ যাদব ০/৬৭, জ্যাসপ্রীত বুমরাহ ০/৫২, হার্দিক পান্ডে ০/৫১, রবীন্দ্র জাদেজা ০/৫২, কেদার যাদব ০/১৮, বিরাট কোহলি ০/১৭)।

প্লেয়ার অব দ্য ম্যাচ: কুসল মেন্ডিস (শ্রীলঙ্কা)