বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের গাড়িবহরে হামলার প্রতিবাদে বিএনপি নেতা রিজভীর বিবৃতি প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, রিজভী হলো প্যাথলজিক্যাল লায়ার, তার কাজই হচ্ছে পার্টি অফিসে বসে মিথ্যা কথা বলা। এ জন্যই ওখানে তাকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। কারা যে হামলাটা করে আমাদের অবস্থানকে ডাউন করে দিল সেটা খুঁজে বের করতে হবে।

বুধবার দুপুরে ঈদকে সামনে রেখে সড়কের প্রস্তুতি কাজ পরিদর্শনে গিয়ে গাজীপুরের কালিয়াকৈর চন্দ্রা ত্রিমোড়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তিনি।

এদিকে চট্টগ্রামে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের গাড়ি বহরে হামলার ঘটনায় যাদের আসামি করা হয়েছে তারা ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের সঙ্গে জড়িত বলে দাবি করেছেন অভিযোগ দায়েরকারী আইনজীবী। মামলার বাদী অ্যাডভোকেট এনামুল জানিয়েছেন, যাদেরকে আসামি করা হয়েছে তাদের অনেকে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের সঙ্গে জড়িত। আমরা ঘটনার সময় ধারণ করা ভিডিও ফুটেজ, স্থিরচিত্র এবং এলাকায় খোঁজ খবর নিয়ে তাদের সম্পৃক্ততা নিশ্চিত হয়ে তাদের নামে মামলা দায়ের করেছি।

আসামিদের মধ্যে অনেকে স্থানীয় ছাত্রলীগ, যুবলীগ, সেচ্ছাসেবকলীগসহ আওয়ামী লীগের গুরুত্বপূর্ণ পদে রয়েছেন বলেও জানান তিনি।

গত ১৮ জুন রোববার চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের গাড়িবহরে হামলার ঘটনায় আজ বুধবার চট্টগ্রাম অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল মেজিস্ট্রেট আ স ম শহীদুল্লাহ’র আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট এনামুল হক বাদী হয়ে এই মামলা করেন। মামলায় ২৬ জনের নাম উল্লেখ করে এবং আরও ২৫-৩০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

মামলায় আসামি করার বিষয়ে চট্টগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু তৈয়ব জানান, বিরোধীরা বিভিন্ন অজুহাতে আমাদের নামে মামলা-হামলা করবে এটা জেনেই আমরা রাজনীতি করি। সুতরাং এই মামলা নিয়ে আমাদের কোনও মাথা ব্যাথা নেই। দায়ের হওয়া এই মিথ্যা মামলার বিরুদ্ধে আমরা আইনি লড়াই চালিয়ে যাবো।

উল্লেখ্য: পাহাড় ধসের দুর্গতদের দেখতে রোববার (১৮ জুন) সকালে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নেতৃত্বে বিএনপির একটি দল রাঙামাটির দিকে যাচ্ছিল। পথে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় ইসাখালী এলাকায় গাড়িবহরটি হামলার শিকার হন। এতে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য মেজর জেনারেল (অব.) রুহুল আলম চৌধুরী, বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক (চট্টগ্রাম বিভাগ) মাহবুবের রহমান শামীম, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. মীর ফাওয়াজ হোসেন শুভ, চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বকরসহ ১৫ জন আহত হন।

বিরোধী দলের নেতাদের সমালোচনার জবাবে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপির আমলে ২১ হাজার নেতাকর্মী গুম ও খুনের দাগ তাদের হাতে লেগে আছে। তাদের মুখে গুম খুনের কথা মানায় না।’

এবারের ঈদে ঘরে ফেরা মানুষের দুর্ভোগ কম হবে মন্তব্য করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বড় ধরনের দুর্যোগ না হলে এবারের ঈদ যাত্রা নির্বিঘ্ন হবে বলে আশা করছি।’

এ সময় হাইওয়ে পুলিশের ডিআইজি আতিকুল ইসলাম ও সড়ক বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।