পিরোজপুর প্রতিনিধি।-

পিরোজপুর সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) রামানন্দ পালের বাসাভবনে ঢুকে তার স্ত্রী অদিতি বড়ালকে ছুরিকাঘাত করেছে দুর্বৃত্তরা।

বৃহস্পতিবার রাত ৮ টা নাগাদ পিরোজপুরে আহত অদিতিকে পিরোজপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আহত অদিতি বড়াল বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলার সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান কালিদাস বড়াল ও হ্যাপি বড়ালের মেয়ে।

জানাগেছে, গত ৩রা জুলাই রমানন্দ পাল বেতাগী উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) হিসেবে কর্মরত সময় কালে অদিতির উপর হামলা করা হয়। তবে এটাও উল্লেখ করা হয় কালীদাস বড়ালের খুনের পর অদিতি পিতৃ হত্যার বিচার চাওয়ার পর থেকে তার পরিবারের সদস্যদের জীবন নাশের হুমকি হয়ে দারিয়েছে।

রামান্দ পাল জানান, সন্ধ্যায় তিনি স্ত্রীকে বাসায় রেখে তিনি জেলা প্রশাসকের বাসভবনে যাবার কিছু সময় পর জানতে পারেন তার স্ত্রী অদিতি  ছুরিকাঘাতে আহত হয়েছে। এ খবর শোনামাত্র পিরোজপুর সদর হাসপাতালে ছুটে আসেন। ঘটনাকালীন সময় তার স্ত্রী ও গৃহকর্মী বন্যা বাসায় ছিলেন।

গৃহকর্মী জানান, এক যুবক কলিং বেল চাপে এবং জানায় সে স্যারের অফিস থেকে এসেছে। দরজা খোলার সাথে সাথে তরিঘরি করে ভিতরে ঢুকে এলোপাথারি ভাবে ছুরি চালিয়ে যাবার সময় হুমকি দেয় বারাবারি করলে বিপদ হবে। পরে অদিতিকে সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

পিরোজপুর সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক শাকিল সরোয়ার জানান, আনুমানিক অদিতির পেটে ও হাতে ধারালো ছুরি দিয়ে আঘাত করা হয়েছে। তিনি এখন চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছে তবে অবস্থার কিছুটা শঙ্কামুক্ত বলে আসস্থ করেন।

পিরোজপুর সদর থানা পুলিশ ওসি এসএম জিয়াউল হক জানান, আহত অদিতিকে পুলিশের নিরাপত্তায় রাখা হয়েছে। হামলাকারীকে গ্রেফতারের করা যায়নি।

এ বিষয় জেলা প্রশাসক আবু আলী মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসাইন জানান, আমরা ঘটনাটি শোনার সঙ্গে সঙ্গে  হাসপাতলে যাই। তার নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখার জন্য পুলিশকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।