কচুয়া উপজেলায় কড়ইয়া ইউনিয়নের ডুমুরিয়া মন্দিরে হামলা ও ভাংচুর করে জাহাঙ্গীর ও সোহাগ এর দল।

14 November, 2018 : 7:57 pm ১২০

কচুয়া উপজেলায় কড়ইয়া ইউনিয়নের ডুমুরিয়া গ্রামে একটি  হরি মন্দিরে গত ১৪ নভেম্বর মঙ্গলবার সন্ধ্যায় স্থানীয় দুই যুবক জাহাঙ্গীর (৪২) ও সোহাগ (২৫) এর নেতৃত্বে ১০/১২ জনের একটি দল মন্দিরের সামনে উপাসনা করা অবস্থায় ভক্তদের উপর দেশীয় অস্ত্র-সশ্র নিয়ে অর্তকিত হামলা চালায়।

হামলা কারীরা মন্দিরের সামনে থাকা ধর্মীয় গ্রন্থ গীতা ভাগবত ছিড়ে ফেলে এবং ভাংচুর ও প্রসাদ নষ্ট করা সহ ভক্তদের উপর  হামলা চালায়।
হামলা কারীদের ছোবল থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য পুরুষ মহিলারা পাশের ঘর বাড়িতে দৌড়ে গিয়ে আশ্রয় নেয় ।কিছু মহিলারা ঘরবাড়িতে আশ্রয় নিতে না পেরে কাছের পুকুরে ঝাঁপিয়ে পড়ে প্রাণ রক্ষা করে। বাড়ির লোকজন জানায় এই উৎশৃঙ্খল যুবকরা প্রায়ই তাদের বাড়িতে এসে নেশা করে। নেশা করতে তাদেরকে বাঁধা দিলে তারা অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে। স্থানীয় লোকজনদের এই ব্যাপারে বলার পর ও কোন প্রতিকার পায়নি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নীলিমা আফরোজ বলেন, হামলার ঘটনাটি আমি শুনেছি। এই সন্ত্রাসীদের ধরে আইনের আওতায় এনে বিচার করা হবে।

কচুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো: আতাউর রহমান ভূঁইয়া জানান, খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনা স্থলে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য পাঠাই। ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

এই হামলার ঘটনায় এলাকার হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজনের মাঝে আতংক বিরাজ করছে।

এ দিকে হামলার শিকার পরিবারের সদস্যরা জানায়, এক শ্রেণীর স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তিরা সংগঠিত ঘটনা এলাকায় বসে মিমাংসা করে দেওয়ার কথা বলাবলি করে আইনের আশ্রয় না নিতে চাপ প্রয়োগ করে আসছে ।

 

[gs-fb-comments]