প্রায় ছয় মাস আগে চট্টগ্রামের ফটিকছড়িতে এক আলোচনা সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি দিয়ে উসকানিমূলক বক্তব্য দেয়ার অভিযোগে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি গিয়াসউদ্দিন কাদের চৌধুরীকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (২২ নভেম্বর) ওই ঘটনায় দায়ে চারটিসহ মোট পাঁচটি মামলায় আদালতে জামিন আবেদন করেন বিএনপির এই নেতা। জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম শিপলু কুমার দে ও বিচারিক হাকিম জয়ন্তী রায়ের আদালত পৃথক মামলায় জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

গিয়াসউদ্দিন কাদের চৌধুরীর আইনজীবী এনামুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, ফটিকছড়িতে এক আলোচনা সভায় দেয়া বক্তব্যের জেরে দায়ের করা চারটি মামলার তিনটিতে আদালত গিয়াসউদ্দিন কাদেরকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছে। সকালে আদালতে হাজির মামলা সমূহে জামিন আবেদন করলে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

গত ২৯ মে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ৩৭তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ফটিকছড়ি উপজেলা সদরের জেইউ পার্ক নামে কমিউনিটি সেন্টারে আলোচনা সভা ও ইফতারের আয়োজন করে স্থানীয় বিএনপি। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান গিয়াসউদ্দিন কাদের চৌধুরী। ওই অনুষ্ঠানে তিনি বলেছিলেন, ‘আপনার বাবার চেয়েও আপনার অবস্থা খারাপ হবে। আপনার বাবার মৃত্যুর পর যেমন ইন্নালিল্লাহ পড়ার লোক ছিল না, আপনার পরিণতি তার চেয়েও খারাপ হবে।’

এ ঘটনায় ফটিকছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জামাল উদ্দিন, ফটিকছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাজিম উদ্দিন মুহুরী ও ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি পৃথক তিনটি মামলা দায়ের করেন।

উল্লেখ্য, গিয়াসউদ্দিন কাদের চৌধুরী একাত্তরে যুদ্ধাপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত বিএনপি নেতা সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরীর ছোট ভাই। তিনি চট্টগ্রাম-৬ (রাউজান), চট্টগ্রাম-৭ ( রাঙ্গুনিয়া) এবং চট্টগ্রাম-২ (ফটিকছড়ি) আসন থেকে বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন কমিশন থেকে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন।