নরসিংদীর শিবপুরে বিএনপি প্রার্থী মঞ্জুর এলাহীর নির্বাচনী ক্যাম্প ও দলীয় কার্যালয়ে হামলা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। দুর্বৃত্তরা এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণে মাহিয়া (১০) নামে এক মাদ্রসা ছাত্রী গুলিবিদ্ধসহ কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে।

আহত মাহিয়া শিবপুরের এলাকার মৃত জালাল মিয়ার মেয়ে ও শিবপুর দারুল উলুম ইসলামিয়া মহিলা মাদ্রসার দ্বীতীয় শ্রেণির ছাত্রী।

শনিবার দুপুরে শিবপুর কলেজগেট ধীমান মার্কেট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ সময় হামলাকারীরা দলীয় কার্যালয়সহ একটি প্রাডো জিপসহ ৬টি গাড়ি ও ২০টি মোটরসাইকলে ভাঙচুর করে। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

পুলিশ ও নেতাকর্মী জানান, শনিবার দুপুরে নরসিংদী-৩ শিবপুর আসনের বিএনপির প্রার্থী মঞ্জুর এলাহী শতাধিক নেতাকর্মী ও গাড়িবহর নিয়ে শিবপুর কলেজগেট এলাকায় বিএনপির দলীয় কার্যালয় ও নির্বাচনী ক্যাম্প উদ্বোধন করতে যান।

নির্বাচনী ক্যাম্প উদ্ধোধন শেষে নেতাকর্মীরা নির্বাচনী সভা করছিল। এ সময় ৪টি মাইক্রোবাসে করে মুখোশধারী ২৫-৩০ জনের একটি দল অস্ত্র নিয়ে অতর্কিত হামলা চালায়।

এ সময় হামলাকারীরা এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণ শুরু করে। ভাঙচুর করা হয় দলীয় কার্যালয়, মোটরসাইকেল ও গাড়ি। এ সময় তাদের ছোড়া গুলিতে মাহিয়া নামে এক মাদ্রাসাছাত্রীসহ ১০ জন আহত হয়। পরে ছাত্রীসহ আহতদের উদ্ধার করে শিবপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মাহিয়ার অবস্থার অবনতি হলে তাকে নরসিংদী ১০০ শয্যাবিশিষ্ট জেলা হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ও আহত পথচারী এমএ সিদ্দিত কাঞ্চন বলেন, আমার রাস্তার পাশে দাঁড়ানো ছিলাম। প্রকাশ্যে অস্ত্র উঁচিয়ে হঠাৎ বৃষ্টির মতো গুলি শুরু করে মুখোশধারী একদল যুবক। মুড়ির মতো করে গাড়ি ও মোটরসাইকেল ভাঙচুর করছিল। এ সময় মাদ্রাদার ভেতরে থাকা এক ছাত্রী গুলিবিদ্ধ হয়।

শিবপুর দারুল উলুম ইসলামিয়া মহিলা মাদ্রসার সহকারী শিক্ষক মো. তছলিম উদ্দিন বলেন, গোলাগুলির সময় মাহিয়া শ্রেণিকক্ষের বারান্দায় ছিল। সে এক শ্রেণিকক্ষ থেকে বারান্দা দিয়ে অপর শ্রেণিকক্ষে যাচ্ছিল। যাওয়ার সময় সে গুলবিদ্ধি হয়।

বিএনপি প্রার্থী মঞ্জুর এলাহী বলেন, পূর্বনির্ধারিত শিডিউল অনুযায়ী শনিবার দিনভর শিবপুরের মাছিমপুর ইউনিয়নে গণসংযোগ ও প্রচারণায় যাচ্ছিলাম। হঠাৎ থানা পুলিশ বলল সেখানে আওয়ামী লীগ প্রার্থী প্রচারণা চালাবে। বিএনপি নেতারা সেখানে যাওয়া যাবে না। পরে আমার মাছিমপুরের প্রচার বাতিল করে দলীয় কার্যালয়ে নির্বাচনী সভা করছিলাম। হঠাৎ আমাদের ওপর হামলা। আমরা যতই সংঘাত এড়িয়ে চলি। তারা তত বেশি আমাদের ওপর হামরা চালাচ্ছে। আমরা ভোট চাইতে পারছি না।

তিনি বলেন, ইসি ও সরাকারের কাছে জানতে চাই এর নাম কি লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড? নির্বাচন উপলক্ষে এখন ভারাটে সন্ত্রাসী ও অস্ত্রধারীদের বাজার জমজমাট হয়ে উঠেছে। কমেছে মানুষের নিরাপত্তা। নরসিংদী জেলা হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক(আরএমও) মিজানুর রহমান বলেন, আহত মাদ্রাসা ছাত্রীর বাম হাতে গুলিবিদ্ধ হয়েছে। অপারেশন করে গুলি বের করেছি। এ ছাড়া তার কপাল ঘেষে আরেকটি গুলি লাগে। তবে তা মাথায় বিদ্ধ হয়নি।

শিবপুর থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ বলেন, বিএনপি নেতাকর্মীরা নির্বাচনী প্রচারণা চালানোর প্রস্তুতি নিচ্ছিল। এরই মধ্যে কয়েক দুর্বৃত্তরা হামলা চালিয়ে বেশ কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর করে। খবর পেয়ে তৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে পুলিশ উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে কে বা কারা হামলা চালিয়েছে সে ব্যাপারে নেতাকর্মীরা কিছু জানাতে পারেনি।