নির্বাচনের সময় রাজধানীর মেসগুলোতে ব্যাচেলররা থাকতে পারবেন না, এমন কোনো নির্দেশনা মেস বা বাড়ির মালিকদের দেয়া হয়নি বলে জানিয়েছেন ডিএমপির উপ-পুলিশ কমিশনার (মিডিয়া সেন্টার) মাসুদুর রহমান।

অপরদিকে, পুলিশের নির্দেশনার কথা বলে অনেক মেস মালিকই ব্যাচেলরদের বৃহস্পতিবার (২৭ ডিসেম্বর) মেস এবং হোস্টেল ছাড়াতে বলেছেন বলে জানিয়েছেন কয়েকজন শিক্ষার্থী এবং কর্মজীবী। রাজধানীর কয়েকটি থানা থেকেও সংবাদমাধ্যমকে এ ধরনের নির্দেশনার কথা জানানো হয়েছে। পুলিশের পক্ষ থেকে এমন নির্দেশনা দেয়া হয়েছে বলে ফার্মগেট এলাকার এক বাড়িওয়ালাও জানিয়েছেন।

তবে, ডিএমপি উপ-কমিশনার মাসুদুর রহমান সময় সংবাদকে জানিয়েছেন, মেস ছাড়ার কোনো নির্দেশনার ডিএমপির পক্ষ থেকে দেয়া হয়নি।

এদিকে, আকস্মিক এমন নির্দেশনায় বিপাকে পড়েছেন বিভিন্ন মেস এবং হোস্টেলে থাকা ব্যাচেলররা। বকুল রায় নামে এক সংবাদকর্মী বলেন, ‘বাড়ি ছাড়তে বলা হয়েছে। এখন আর কী করবো। কিছু তো আর করার নাই।’

মিরপুরের এক কর্মজীবী নারী বলেন, ‘হঠাৎ করে জানানো হয়েছে, মেস ছেড়ে দিতে হবে। থানা থেকে নাকি এমন নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এখন তো বাড়িতে যাওয়ারও উপায় নাই।’

রাজধানীর পান্থপথ এলাকার একটি মেস সদস্য মো. তরিকুল ইসলাম বলেন, ‘আমাদের বাসার মালিক নোটিশ দিয়েছে যে, আজ সন্ধ্যা ছয়টার মধ্যে মেস ছাড়তে হবে। আগামী ১ জানুয়ারির আগে আর মেসে ফেরা যাবে না।’

মতিঝিল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওমর ফারুক বলেন, ‘আমাদের এ ধরনের কোনো নির্দেশনা দেয়া হয়নি।