শরণখোলা প্রতিনিধি:-

মায়ের মোবাইলে আসা উপবৃত্তির টাকা চেয়ে না পেয়ে অভিমানে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে স্কুলছাত্র মো. কবির হাওলাদার (১২)। রবিবার বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে উপজেলার ধানসাগর ইউনিয়নের দক্ষিণ বাধাল গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ঢাকায় কর্মরত ইমারত শ্রমিক মো. ওবায়দুল হাওলাদারের ছেলে কবির বাধাল আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র। মা নাছিমা বেগম জানান, তার মোবাইলে ছেলের উপবৃত্তির ৩০০টাকা আসে। দুপুরে স্কুল থেকে এসে ওই টাকা মোবাইল থেকে বের করে দেওয়ার জন্য বললে তিনি তা দেননি। এসময় পাশ্ববর্তী গ্রামে তার এক আত্মীয়ের মৃত্যুর খবর এলে কবিরকে বাড়িতে রেখে পরিবারের সবাই সেখানে চলে যায়। এই ফাকে তার ছেলে টাকা না পাওয়ার ক্ষোভে-অভিমানে সিলিং ফ্যানের সাথে গলায় ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আসাদুজ্জামান স্বপন  জানান, বিকেলে সাড়ে পাঁচটার দিকে কবিরের এক প্রতিবেশী সহপাঠী ডাকাডাকি করে কোনো সাড়া না পেয়ে ঘরে ঢুকে তাকে ঝুলন্ত অবস্থা দেখে আশপাশের লোকজনকে খবর দেয়। পরে তিনি এবং প্রতিবেশী আত্মীয়রা কবিরকে নামিয়ে সন্ধ্যা ৬টার দিকে হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।

শরণখোলা থানার ওসি দিলীপ কুমার সরকার  জানান, এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। খোঁজখবর নিয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।