শেখ হাসিনার অবসরের এখনই উপযুক্ত সময় নয় : যুবলীগ চেয়ারম্যান

16 February, 2019 : 4:37 pm ৭১

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আর প্রধানমন্ত্রী হতে চান না বলে যে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন সে বিষয়ে প্রতিক্রিয়ায় জানিয়েছেন যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী। মালয়েশিয়ার উন্নয়নের রূপকার মাহাথির মোহাম্মদের উদাহরণ টেনে তিনি বলেছেন, ৯২ বছর বয়সেও মাহাথির আবারও প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছেন। আমাদের মনে হয় না যে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অবসরে যাওয়ার এটাই উপযুক্ত সময়। কাজেই তিনি তার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করবেন বলে আমরা আশা করি। এ সময় ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশে শেখ হাসিনার কোনো বিকল্প নেই। বাংলাদেশ যে উন্নয়নের অগ্রযাত্রার পথে চলছে, তিনি ছাড়া সেই ধারাবাহিকতা ব্যাহত হতে পারে। গণমাধ্যমে পাঠানো যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির দফতর কাজী আনিসুর রহমান স্বাক্ষরিত ওই বিবৃতিতে তিনি এসব মন্তব্য করেন। বাংলাদেশের অগ্রগতি এবং অগ্রযাত্রার আরেক নাম শেখ হাসিনা উল্লেখ করে যুবলীগ চেয়ারম্যান বলেন, শেখ হাসিনা না থাকলে এ দেশে স্বৈরাচারের পতন হতো না। তিনি ছিলেন বিধায় যুদ্ধাপরাধীদের বিচার সম্ভব হয়েছে। রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার জন্যই জাতির পিতার হত্যার বিচারের মধ্যে দিয়ে বাঙালি জাতির কলঙ্ক মোচন হয়েছে। যুবলীগ চেয়ারম্যান মনে করেন, কে ক্ষমতায় থাকবেন আর কে থাকবেন না তা জনগণের সিদ্ধান্তের বিষয়। কিন্তু জনগণের ক্ষমতায়ন এবং তাদের স্বপ্নপূরণের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কোনো বিকল্প নেই। ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, আমরা প্রধানমন্ত্রীকে তার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেনার জন্য অনুরোধ করবো। তিনি শুধু বাংলাদেশে নন, সারা বিশ্বেই আজ প্রশংসিত। সারা বিশ্বেই বলা হচ্ছে যে, শেখ হাসিনার কারণেই বাংলাদেশে আজ উন্নয়ন ও অগ্রগতির মহাসড়কে প্রবেশ করেছে। তার নেতৃত্বেই এদেশ বিশ্বের উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত হয়েছে। কাজেই তাকে ছাড়া বাংলাদেশের উন্নয়নের গতিধারা অব্যাহত থাকবে, এটা আমরা ভাবতেও পারিনা। তিনি বলেন, রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা না থাকলে ১২ লাখ রোহিঙ্গা। মানবিক বিপর্যয়ে পড়তো। ওমর ফারুক চৌধুরী আরও বলেন, দেশ এবং জাতির স্বার্থে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করবেন বলে আমরা আশা করছি। বঙ্গবন্ধু কন্যার নেতৃত্বেই বাংলাদেশের গড় আয়ু বেড়েছে। আমরা তাকে অনুরোধ করবো যে, বাংলাদেশকে একটা টেকসই উন্নয়নের জায়গায় প্রতিস্থাপনের আগে তিনি যেন অবসরের সিদ্ধান্ত না নেন।

[gs-fb-comments]