সীমান্তে চোরাকারবারিদের সহযোগিতা ও মাদক ব্যবসার সঙ্গে সম্পৃক্ততার অভিযোগে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তালিকায় থাকা আখাউড়া থানার সেই বিতর্কিত ওসি মোশাররফ হোসেন তরফদারকে অবশেষে ক্লোজ করা হয়েছে। শনিবার রাতেই তাকে জেলা পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়। জানা যায়, ব্রাহ্মণবাড়িয়া আখাউড়া থানায় ওসি হিসেবে ২০১৫ সালের ২১ অক্টোবর যোগদান করার পর বেপোরোয়া হয়ে ওঠেন মোশাররফ হোসেন তরফদার। ক্রসফায়ায়ের ভয় দেখিয়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার পাশাপাশি সীমান্তবর্তী এই থানার একটি পৌরসভা ও ৫টি ইউনিয়নে শতাধিক স্পট থেকে মাসে প্রায় কোটি টাকা মাসোহারা নেয়ার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। এ নিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, পুলিশ সদর দফতর, চট্টগ্রাম ডিআইজি কার্যালয় ও জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে তার বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ করা হয়েছে। পরবর্তী সময়ে গত বছর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে তদন্ত করায় জেলায় ১৬ পুলিশ সদস্যের মাদক ব্যবসার সঙ্গে সম্পৃক্ততা প্রমাণ পায়। তাদের মধ্যে শীর্ষে ছিলেন ওসি মোশাররফ হোসেন তরফদার। এত শত অভিযোগ থাকার পরও আখাউড়ার একজন প্রভাবশালী জনপ্রতিনিধিকে ম্যানেজ করে দীঘদিন তিনি স্বপদে বহাল তবিয়তে ছিলেন। অভিযোগের বিষয়ে আখাউড়া থানার সদ্য সাবেক ওসি মোশাররফ হোসেন তরফদার বলেন, আমার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সঠিক না। জনস্বার্থে আমাকে বদলি করা হয়েছে। এছাড়া আখাউড়া থানায় তো অনেকদিন চাকরি করলাম। এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পুলিশ সুপার মো. আনোয়ার হোসেন খান জানান, ওসি মোশাররফ হোসেন তফরদারকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে।