ব্রাক্ষণবাড়িয়া সোনালী ব্যাংক ম্যানেজারের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু

27 February, 2019 : 5:20 pm ৮৯
সোনালী ব্যাংক ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রধান শাখার ম্যানেজার (এজিএম) সন্তোষ চন্দ্র দেবনাথের বিরুদ্ধে গ্রাহকদের সঙ্গে দুর্ব্যবহারের অভিযোগের তদন্ত শুরু হয়েছে। ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের আদিষ্ট হয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রিন্সিপাল অফিসে কর্মরত এজিএম মুনিবুর রহমান গতকাল ম্যানেজার সন্তোষের বিরুদ্ধে অভিযোগকারী একাধিক ভুক্তভোগীর বক্তব্য শুনেন। সন্তোষ চন্দ্র দেবনাথের বিরুদ্ধে গ্রাহকদের সঙ্গে দুর্ব্যবহারের বিস্ত্তর অভিযোগ রয়েছে। গ্রাহকরা কোনো কাজ নিয়ে তার কক্ষে গেলে ক্ষিপ্ত আচরণ করেন তিনি। গরু-ছাগল বলে গালাগাল করেন। গ্রাহকরা কোনো অভিযোগ করলে তাদের প্রাইভেট ব্যাংকে চলে যেতে বলেন। গত ১২ই ডিসেম্বর ব্যাংকে একটি কাজে গিয়ে তার চরম দুর্ব্যবহারের শিকার হন সাংবাদিক জাবেদ রহিম বিজন। তিনি ম্যানেজার সন্তোষ চন্দ্র দেবনাথের বিরুদ্ধে সোনালী ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে যার তদন্ত শুরু হয়েছে এখন। অভিযোগ সূত্রে জানা যায় ওইদিন দুপুর সোয়া ১টার দিকে অভিযোগকারীসহ দু’জন বিদ্যুৎ সংযোগের জামানতের টাকা জমা দিতে ওই শাখায় যান। সে সময় ব্যাংকের সব কাউন্টার কর্মচারীশূন্য দেখতে পেয়ে ম্যানেজারের কক্ষে গিয়ে ব্যাংকিং কার্যক্রম এই সময়ে বন্ধ কিনা জানতে চান তারা। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন সন্তোষ চন্দ্র দেবনাথ। বলতে থাকেন- হুট করে ম্যানেজারের রুমে চলে আসে। ছাগল-পাগল সবই চলে আসে এখানে। জেলা আওয়ামী লীগের সেক্রেটারি থেকে শুরু করে অনেকে তার সামনে এসে দাঁড়িয়ে থাকে বলেও সন্তোষ বলতে থাকেন। জানা যায় এখানে যোগদানের পর থেকেই বেপরোয়া সন্তোষ চন্দ্র দেবনাথ। ছাত্রজীবনে একটি বিশেষ দলের রাজনীতি করেছেন এই পরিচয়ে যা খুশি তাই করছেন তিনি। তার দুর্ব্যবহারের কারণে ব্যাংকের গ্রাহকদের মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। এতে ব্যাংকের সুনামও নষ্ট হচ্ছে।

[gs-fb-comments]