সরাইলে সরগরম নির্বাচনী মাঠ বিএনপির দুই প্রার্থীকে ঘিরে!

10 March, 2019 : 1:35 pm ১০২

সরাইলঃ

জাতীয় নির্বাচনের পর আসন্ন উপজেলা নির্বাচনের ভোটের দিন যত ঘনিয়ে আসছে ততই সরগরম হয়ে উঠছে উপজেলা নির্বাচনের মাঠ। ইতোমধ্যে চুড়ান্ত করা হয়েছে সরাইল উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় প্যানেল।চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে গণসংযোগ, পোস্টারিং আর প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন সরাইল বি এন পির যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক এডঃ নুরুুজ্জামানলস্কর তপুও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে জেলা জিয়া পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মোছাঃ শামীমা আক্তার।

তবে উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি না আসার সিদ্ধান্তের কারনে বিএনপি নয়, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ভোটযুদ্ধে অংশ নিচ্ছেন এক নেতা এক নেত্রী। সামাজিক যোগাযোগ ফেসবুকেও তাদের সমর্থকদের রয়েছে ব্যাপক উপস্থিতি। বিএনপির না হয়ে স্বতন্ত্র হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিলেও দলের নেতাকর্মীদের মাঝে এ নিয়ে হতাশা নয় বরং সক্রিয়তা লক্ষণীয়। সরাইলের বিভিন্ন গুরত্বপূর্ন স্থান ছাড়াও চায়ের দোকান, দেয়াল কিংবা ব্রিজ সর্বত্র দোয়া চেয়ে পোস্টারিং সম্পন্ন করেছেন এই দুই প্রার্থী। প্রতীক বরাদ্দের পর আরও জোড়ালো ভাবেই মাঠে নামবেন তারা। তৃণমুলের নেতাকর্মীদের সাথে কথা হলে তারা এ প্রতিবেদক জানান, সর্বশেষ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির প্রাপ্ত ভোট বলে দেয় আসনটি বিএনপি বিশাল ভোট ব্যাংক ও সমর্থক রয়েছে দলটির। এদিকে উপজেলা নির্বাচনে স্বতন্ত্র হয়ে বিএনপি নেতাদের অংশ গ্রহনের বিষয়টি ঠিক থাকলে আগামী ৩১ তারিখে অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনটি বেশ হাড্ডাহাড্ডি ও প্রতিযোগিতামূলক হবে বলে এমনটি জানিয়েছেন।

তবে চেয়ারম্যান প্রার্থী নুরুজ্জামান লস্কর তপু এই প্রতিবেদককে বলেন, বিএনপির নয়, আমি একজন স্বতন্ত্র প্রার্থী। উপজেলাবাসী আমাকে চেয়ারম্যান নির্বাচিত করতে চান। তাদের ভালোবাসায় নির্বাচনে অংশ নিতেই আমি দল থেকে পদত্যাগ করে এই নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছি। কারণ আমি রাজনীতি করি মানুষের জন্যে। দলের তৃণমুলের প্রত্যাশাই অামি নির্বাচন করছি। অপরদিকে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী শামীমা আক্তার বলেন, আমি আগেও এখানে উপজেলা নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলাম। এখন আমার দল নির্বাচনে যাচ্ছে না। কিন্তু মানুষের ভালবাসা ও তৃণমুলের চাপাচাপিতে আমাকে নির্বাচনের প্রার্থী হতে হয়েছে। দলীয় চাপ থাকলেও শেষ পর্যন্ত আমাকে এই নির্বাচন মাঠে টিকে থাকতে হবে, শুধু উপজেলার মানুষের জন্যে।

দলের নেতা কর্মীরা অভূতপূর্বভাবে তাদের সাথে রয়েছেন ও কাজ করে যাচ্ছেন। নির্বাচনে জয়লাভের ব্যাপারে তারা ভীষণভাবে আশাবাদী। দলের তৃণমূলের প্রত্যাশার কারনেই তারা নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করছেন বলেও জানান স্বতন্ত্র হয়ে নির্বাচন করা বিএনপির এই দুই প্রার্থী।অনেক নেতা কর্মীরা জানান, কেন্দ্রীয় ভাবে বিএনপি যেহেতু এই নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেনা তাই বিএনপির এই দুই নেতার নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করা নিয়ে তৈরি হচ্ছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। অাবার দলের অনেকেই মনে করেন যেহেতু বিএনপি নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেনা সেহেতু বিএনপির কোন নেতা দলের সিদ্ধান্তের বাইরে নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করবে এটি কাম্য নয়। তাদের বিরুদ্ধে দলের পক্ষ থেকে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেন বিএনপির কেউ কেউ।সরাইল উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপির সভাপতি এডঃ অাব্দুর রহমান বলেন, দলের সিদ্ধান্তের বাইরে যারা নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করবেন তাঁরা দলের কেউ না, এ নেতা অারো বলেন, তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

[gs-fb-comments]