দীর্ঘ ২৮ বছর পর ডাকসু নির্বাচন।
স্বভাবতই এই নির্বাচন নিয়ে ছাত্র-ছাত্রী সহ সর্বসাধারণের অনেক প্রত্যাশা। প্রত্যাশার প্রতিফলন ব্যালট বাক্সের মাধ্যমে হবে ইনশাআল্লাহ।
আমি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন সাধারণ শিক্ষার্থী হিসেবে অনেক প্রতিকূল পরিস্থিতি মোকাবেলা করে চতুর্থ বর্ষ পার করতে যাচ্ছি। এই কয়েক বছরে ভালো মন্দ অনেক অভিজ্ঞতা অর্জন করেছি। সত্যি বলতে এই বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণে ক্ষমতার লড়াইয়ে সাধারণ শিক্ষার্থীদের চাওয়া পাওয়া অনেকটাই আড়াল হয়ে থাকে। দিন শেষে তাদের ন্যায্য অধিকার নিয়ে কথা বলার কেউ থাকে না। এমতাবস্থায় যোগ্য নেতৃত্ব অপরিহার্য হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তিযুদ্ধ শেষ করে যখন একজন শিক্ষার্থী এই ক্যাম্পাসে পা রাখে ঠিক তখনই চারদিক থেকে আসে নানাবিধ সমস্যা। তার মধ্যে অন্যতম হল আবাসন ব্যবস্থা। কোন কোন ক্ষেত্রে দ্বিতীয় /তৃতীয় বর্ষ পার হয়ে গেলেও শিক্ষার্থীরা তাদের ন্যায্য থাকার জায়গাটুকু পায় না।যেমনটা আমার ক্ষেত্রে হয়েছে।
ক্ষমতাসীনদের ক্ষমতার বড়াই, অসম ক্ষমতার বণ্টন, ভারসাম্যহীন রাজনৈতিক মাঠ এসব বিশৃঙ্খলা জন্ম দিচ্ছে দিনের পর দিন।
বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম দিন থেকেই আমি এসব অন্যায়ের বিরুদ্ধে রখে দাঁড়াতে চেয়েছি এবং চাই সর্বদা।
একটি সুষ্ঠু ডাকসু নির্বাচনই একমাত্র অবলম্বন যার মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয় পাবে যোগ্য নেতৃত্ব।
প্রিয় ভাই বোন এবং সহপাঠীরা চোখ কান খোলা রাখুন,বেছে নিন আপনাদের যোগ্য প্রার্থীকে।
আমি আপনাদেরই একজন,আমাকে যোগ্য মনে হলে #১১_নং_ব্যালট_বাক্সে মুল্যবান ভোটটি দিয়ে আপনাদের পাশে থাকার সুযোগ করে দিবেন।
কথা দিচ্ছি সব সময়ই ন্যায়ের পথে থেকে সাধারণ ছাত্র-ছাত্রীদের পাশে থাকবো।
সকলের সুস্বাস্থ্য কামনা করছি।