ঢাকা ঃ

সাহসী ও প্রতিবাদী এক নারীর নাম মনীষা চক্রবর্ত্তী (২৯)। নারীর প্রতি সহিংসতা, সব ধরনের নিপীড়ন ও বৈষম্য বিলোপের লড়াই করে যাচ্ছেন ডা. মনীষা চক্রবর্ত্তী। শুধু নারীদের অধিকার আদায়ে নয়, তনু হত্যার প্রতিবাদে বরিশালে ছাত্র ধর্মঘটসহ ধারাবাহিক আন্দোলন, সারাদেশে সন্ত্রাস-দখলদারিত্ব-নারী নির্যাতন বিরোধী আন্দোলন ও শ্রমজীবী মেহনতি মানুষের অধিকার আদায়ে তিনি সব সময়ই রাজপথে ছিলেন সোচ্চার ও অগ্রণী ভূমিকায়। মেডিকেলে পড়ালেখা শেষ করে ৩৪তম বিসিএসে স্বাস্থ্য ক্যাডারে সহকারী সার্জন পদে নিয়োগ পান মনীষা চক্রবর্ত্তী। যার হাতে ওঠার কথা ছিল স্টেথোস্কোপ-সার্জারির যন্ত্রপাতি, যার থাকার কথা ছিলো হাসপাতালের অপারেশন থিয়েটারে রোগী-চিকিৎসা-ওষুধ পথ্যাদি নিয়ে জনগণের সেবায়, সেই মনীষা চক্রবর্তী আজ রাজপথে-রাজনীতির মাঠে। সরকারি চাকরিতে যোগ না দিয়ে এই চিকিৎসক বিনা পয়সায় গরিব মানুষকে চিকিৎসা দেন, নারী, শিশু ও শ্রমজীবী মানুষের অধিকার আদায়ের আন্দোলনে থাকেন তিনি। শ্রমিকদের মধ্যে জনপ্রিয় তিনি। শ্রমিক ও বস্তিবাসীর কাছে ‘দিদি’ নামে পরিচিত তিনি। আবার কারো কাছে পরিচিত গরিবের ডাক্তার নামে।