মোঃ আব্দুল হান্নান, নাসরিনগর ঃ

সামনে দরজায় কড়া নাড়ছে উপজেলা নির্বাচন। বিএনপি নেই ভোটে, শুধু আওয়ামীলীগ মাঠে। 31 র্মাচ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে 4র্থ ধাপের নাসিরনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন।14 র্মাচ ছিল প্রতীক বরাদ্দের শেষ দিন। উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে উৎকন্ঠায় ভোগছে জনগন। নির্বাচন ঘনিয়ে আসলেও এলাকায় এখনো নেই কোন নির্বাচনী উত্তাপ। এবারে উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে 2 জন, ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ পদে 3 জন ও ভাইস চেয়ারম্যান মহিলা পদে ২ জন নির্বাচনী মাঠে রয়েছে।

নাসিরনগর উপজেলা নির্বাচনে দলীয় প্রতীক নৌকা নিয়ে মাঠে নেমেছেন প্রবীন রাজনীতিবিদ ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ডা.রাফিউদ্দিন আহমেদ। অপরদিকে দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে আনারস প্রতীক নিয়ে বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এটিএম মনিরুজ্জামান সরকার শক্তবস্থানে দৌড়ঝাপ শুরু করেছে ।

সংরক্ষিত মহিলা ভাইসচেয়ারম্যান পদে প্রজাপতি প্রতীক নিয়ে বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দা হামিদা লতিফ পান্না ও কলস প্রতীক নিয়ে প্রভাষক রুবিনা আক্তার।

অপরদিকে ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ পদে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক ও উপজেলা কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির সাধারণ সম্পাদক অরুন জ্যোতি ভট্রাচার্য্য (তালা),ব্রাহ্মনবাড়িয়া সরকারি কলেজের সাবেক এজিএস সৈয়দ ফজলে ইয়াজ (ফয়েজ)চিশতী (চশমা) ও আওয়ামী লীগ কর্মী দাবীদার স্বরজিত চন্দ্র দাস (টিউবওয়েল)প্রতীক নিয়ে মাঠে লড়ছে।

তবে নির্বাচনকে নিয়ে জনমনে তেমন কোন উৎসাহ উদ্দীপনা দেখা যাচ্ছে না। উপজেলা বাসীর মতে এবার উপজেলা চেয়ারম্যান পদে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদকের মাঝে ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দা হামিদা লতিফ পান্না ও রুবিনা আক্তারের মাঝে লড়াই হবে দ্বিমূখী অপরদিকে পীরজাদা আলহাজ্ব সৈয়দ ফজলে ইয়াজ আল হোসাইন ফয়েজ (চিশতী),অরুন জ্যোতি ভট্টার্চা্য্য, স্বরজিৎ দাসের মাঝে লড়াই হবে ত্রিমুখী।

উপজেলা নির্বাচনকে নিয়ে জনগণের মাঝে উৎসাহ উদ্দীপনা না দেখে 13 র্মাচ প্রত্যাহারের শেষ দিনে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার নিকট লিখিতভাবে আবেদন করে ও নিজের ফেইসবুক আইডিতে স্ট্যাটার্স দিয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন থেকে সরে দাড়ালেন জাতীয় পার্টির প্রার্থী মোঃ শাহানুল করিম(গরীবুল্লাহ সেলিম)।