সাংসদ সংগ্রাম এর বিরুদ্ধে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ

24 March, 2019 : 5:42 am ৪১

নাসিরনগর।।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া নাসিরনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ (নাসিরনগর) আসনের সাংসদ বিএম ফরহাদ হোসেন (সংগ্রাম) এর বিরুদ্ধে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী।
গতকাল শুক্রবার বিকেলের দিকে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে তিনি এ বিষয়ে লিখিত দিয়েছেন।
উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রাফি উদ্দিন আহমেদ দলীয় মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী। উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এটিএম মনিরুজ্জামান সরকার আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী।
লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, মনিরুজ্জামান চতুর্থ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আনারস প্রতীক নিয়ে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী রাফি উদ্দিন আহমেদ নির্বাচনী মাঠে এক প্রকার অনুপস্থিত।
গত ২১ মার্চ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের আচরণবিধির ২২ (১) ধারা লঙ্ঘন করে সংসদ সদস্য ফরহাদ হোসেন (সংগ্রাম) দলীয় প্রার্থীর পক্ষে উপজেলার সদর, কুন্ডা ও গোকর্ণ ইউনিয়নের লোকজনকে উপজেলা ডাকবাংলোতে ডেকে এনে নির্বাচনি সভা করেছেন।
একইভাবে পরদিন ২২ মার্চ সকাল ১০টায় উপজেলার চাতলপাড় ইউনিয়নের আলোকজনকে সরকারি ডাকবাংলোতে ডেকে নিয়ে যান। সেখানে তাদের সঙ্গে নির্বাচনি প্রচারসভা অনুষ্ঠান করেন এবং স্থানীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকদের ডেকে চাপ প্রয়োগ করেন যেন কেউ মনিরুজ্জামানের পক্ষে প্রচারণা চালাতে না পারে।

এটি সম্পূর্ণরূপে উপজেলা নির্বাচনি আচরণ বিধিমালা ২০১৬ এর ২২ (১) ধারা পরিপন্থি বলে তিনি অভিযোগে উল্লেখ করেন। এ বিষয়ে যথাযত আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ অবশ্যক নতুবা তার ক্ষতির কারণ হবে বলেও উল্লেখ করা হয়।
সংসদ সদস্য বিএম ফরহাদ হোসেন (সংগ্রাম) বলেন, আমি ১৫ দিন দেশের বাইরে ছিলাম। মা-বাবার কবর জিয়ারত করতে এলাকায় এসেছি। কোনো ধরনের সভা করা হয়নি।
উপজেলা নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ জিল্লুর রহমান বলেন, আমরা একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে। যা পরবর্তীতে আপনারা জানতে পারবেন।
প্রসঙ্গত, আগামী ৩১ মার্চ চতুর্থ দফায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দেশের অন্যান্য উপজেলার সাথে নাসিরনগরসহ জেলার ৭টি উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

[gs-fb-comments]