নবীনগরে নির্বাচন নিয়ে দুই গ্রামে সংঘর্ষ।। চেয়ারম্যানের বাড়িঘরসহ ব্যাপক ভাংচুর-আটক-৬

1 April, 2019 : 12:32 pm ১০২

 

নবীনগর।।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরে দুইটি গ্রামে নির্বাচনউত্তর সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সোমবার (০১/০৪) উপজেলার পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের উপর হামলা চালানো হয়েছে উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের থানাকান্দি গ্রামে। অপরদিকে একই দিনে উপজেলার রতনপুর ইউনিয়নে খাগাতোয়া গ্রামে দু’পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের নৌকার প্রার্থীর সমর্থকরা দোয়াতকলম প্রার্থীর সমর্থকদের উপর হামলা ও ভোট কাটার চেষ্টার ঘটনায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় ও সংঘর্ষে কমপক্ষে ১০জন আহত হয়েছে এবং কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের বাড়িসহ বেশ কয়েকটি বাড়ি ঘরে ভাংচুর চালানো হয়। খবর পেযে পুলিশ বিজেপি দ্রুত দুইটি ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। স্থানীয় ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়-থানাকান্দি গ্রামে মোসলেম মেম্বার গ্রুপ নৌকার পক্ষে এবং চেয়ারম্যান জিল্লুর রহমানের গ্রুপ দোয়াত কলমের পক্ষে অবস্থান নিয়ে প্রচারনা চালায়। নির্বাচনের দিন দোয়াতকলমের সমর্থনের ভোটারা ভোট দিতে সাতঘর হাটি সর:প্রা: বিদ্যালয় কেন্দ্রে যাওয়ার পথে নৌকার সমর্থক গ্রুপ কাউছার মেম্বার এর নেতৃত্বের দলটি কেন্দ্রে যেতে বাধাঁ দেয় এবং অটো ড্রাইভারকে মারধর করে। তারই রেশ ধরে আজ সোমবার কাউছার মোল্লার গ্রুপ জিল্লুর চেয়ারম্যানের বাড়ি ও গনিমাহমুদের বাড়িতে হামলা ভাংচুর চালায়। এদিকে খাগাতোয়া গ্রামে পাশ্ববর্তী উপজেলার দড়িকান্দি গ্রামের যুবলীগ নেতা টুটুলের নেতৃত্বে একটি গ্রুপ নৌকার পক্ষে খাগাতোয়া সর:প্রা:বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট কাটতে গেলে প্রতিপক্ষ ও এলাকাবাসি তাদের ধরে মারধর করে তারিয়ে দেয়। তারই রেশ ধরে গ্রামে উভয় সোমবার দিনব্যাপী বিছিন্ন হামলা ও ধাওয়া পাল্টার ঘটনা ঘটছে। এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত সংঘর্ষে জড়িত থাকায় থানাকান্দি গ্রামের কাউছার মোল্লাসহ ৬জনকে আটক করে থানা হেফাজতে পাঠিয়েছে পুলিশ। ওই দুই গ্রামের বিজেপিসহ পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এ ব্যাপারে নবীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ রনোজিত রায় বলেন, দুই গ্রামের পরিস্থিতি এখন শান্ত ,গ্রামদুইটি পুলিশের নিয়ন্ত্রনে রয়েছে।

[gs-fb-comments]