সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে গত ৩০/০৩/২০১৯তাং আনুমানিক দুপুর ১২:৪০মিনিটে দেশিয় অস্ত্র নিয়ে আলকাছ মিয়া ও তার ক্যাডার বাহিনি সুব্রত রঞ্জন দাস এর দোকান সহ অরো ৫ টি হিন্দুদের দোকান দখল করার চেষ্টা করে ।এতে বাধা দিতে গেলে সকলকে মারধর করে ।সকলকে দোকান থেকে বেরকরে দোকানে তালা লাগিয়ে দেয় ।সকলকে দেশ ছেড়ে চলে যাবার হুমকি দেয়।দেকানের কাছে গেলে খুন করার হুমকি দেয়।এ বিষয় তাহিরপুর থানায় একটি একটি অভিযোগ করা হয়েছে।কিন্তু এখন পর্যন্ত থানাথেকে কোনো রকমের সহযোগিতা ভুক্তভুগিরা পায়নি।

অভিযুক্তরা হলেন:-

১. আলকাছ মিয়া(৪৫), ২. মনির হোসেন(৩০), ৩. সুজন মিয়া(২০), ৪. ছাব্বির মিয়া(১৮), ৫. ইসলাম উদ্দিন(১৯), ৬. মরম অলী(৬৫)সহ অরো অজ্ঞাতনামা ৫/৬ জন।

বড়ছড়া গ্রামের একটি বাজার।এই বাজারের জায়গা মনি বাবু নামে এক ব্যক্তির পূর্বপুরুষদের ।অনেক  আগে থেকে এই যায়গা  তাদের। সেখানে তারা অনেক আগে থেকেই বসবাস করে আসছে।

বাজারে কিছু জায়গা আবার তারা মসজিদ এর নামে দিয়েছে আবার কিছু জায়গা আওয়ামী লীগের অফিসের জন্য দান করে দিয়েছে।বাজারের ভিতরে কবরস্থান জায়গাও মনি বাবু দান করা ।বর্তমানে বাজারে মনি বাবুর আত্মীয়-স্বজনদের পাঁচটি দোকান আছে । গত কিছু বছর শান্তিতে দোকানপাট করলেও বর্তমানে তারা পারছে না স্থানীয় কয়লা ব্যবসায়ী আলকাছ খন্দকার ও তার বাজার কমিটির সদস্যদের অত্যাচারে, চালাচ্ছে লুটপাট ভাঙচুর। দোকান খুলতে দিচ্ছে না। অন্য জায়গায় ভাড়া দিতে দিচ্ছে না। আর তাকে এখন বিভিন্নভাবে হুমকি দেয় ।

পাঁচটি দোকান হলো শ্রাবন্তী স্টোর পরিচালক অসীম দাস, সুমন স্টোর পরিচালক সুমন দাস, রিদয় স্টোর পরিচালক হৃদয় দাস সাগর, বিশাল স্টোর পরিচালক অনিক দাস ,শুভ টি স্টল পরিচালক সুব্রত দাস

হিন্দু পরিবার গুলি চরম নিরাপত্তা হিনতায় ভূগছে।তাই ভুক্তভুগিরা প্রধান মন্ত্রী এর সহযোগিতা কামনা করছে।

"/>

সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে ৫ টি হিন্দুদের দোকান দখল ও দেশ ত্যাগের হুমকি

7 April, 2019 : 9:36 pm ১৩৯৯

সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে গত ৩০/০৩/২০১৯তাং আনুমানিক দুপুর ১২:৪০মিনিটে দেশিয় অস্ত্র নিয়ে আলকাছ মিয়া ও তার ক্যাডার বাহিনি সুব্রত রঞ্জন দাস এর দোকান সহ অরো ৫ টি হিন্দুদের দোকান দখল করার চেষ্টা করে ।এতে বাধা দিতে গেলে সকলকে মারধর করে ।সকলকে দোকান থেকে বেরকরে দোকানে তালা লাগিয়ে দেয় ।সকলকে দেশ ছেড়ে চলে যাবার হুমকি দেয়।দেকানের কাছে গেলে খুন করার হুমকি দেয়।এ বিষয় তাহিরপুর থানায় একটি একটি অভিযোগ করা হয়েছে।কিন্তু এখন পর্যন্ত থানাথেকে কোনো রকমের সহযোগিতা ভুক্তভুগিরা পায়নি।

অভিযুক্তরা হলেন:-

১. আলকাছ মিয়া(৪৫), ২. মনির হোসেন(৩০), ৩. সুজন মিয়া(২০), ৪. ছাব্বির মিয়া(১৮), ৫. ইসলাম উদ্দিন(১৯), ৬. মরম অলী(৬৫)সহ অরো অজ্ঞাতনামা ৫/৬ জন।

বড়ছড়া গ্রামের একটি বাজার।এই বাজারের জায়গা মনি বাবু নামে এক ব্যক্তির পূর্বপুরুষদের ।অনেক  আগে থেকে এই যায়গা  তাদের। সেখানে তারা অনেক আগে থেকেই বসবাস করে আসছে।

বাজারে কিছু জায়গা আবার তারা মসজিদ এর নামে দিয়েছে আবার কিছু জায়গা আওয়ামী লীগের অফিসের জন্য দান করে দিয়েছে।বাজারের ভিতরে কবরস্থান জায়গাও মনি বাবু দান করা ।বর্তমানে বাজারে মনি বাবুর আত্মীয়-স্বজনদের পাঁচটি দোকান আছে । গত কিছু বছর শান্তিতে দোকানপাট করলেও বর্তমানে তারা পারছে না স্থানীয় কয়লা ব্যবসায়ী আলকাছ খন্দকার ও তার বাজার কমিটির সদস্যদের অত্যাচারে, চালাচ্ছে লুটপাট ভাঙচুর। দোকান খুলতে দিচ্ছে না। অন্য জায়গায় ভাড়া দিতে দিচ্ছে না। আর তাকে এখন বিভিন্নভাবে হুমকি দেয় ।

পাঁচটি দোকান হলো শ্রাবন্তী স্টোর পরিচালক অসীম দাস, সুমন স্টোর পরিচালক সুমন দাস, রিদয় স্টোর পরিচালক হৃদয় দাস সাগর, বিশাল স্টোর পরিচালক অনিক দাস ,শুভ টি স্টল পরিচালক সুব্রত দাস

হিন্দু পরিবার গুলি চরম নিরাপত্তা হিনতায় ভূগছে।তাই ভুক্তভুগিরা প্রধান মন্ত্রী এর সহযোগিতা কামনা করছে।

[gs-fb-comments]
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com