বাইশমোজা বাজার থেকে ১০ টাকা দরের সরকারি চাউল জব্দ

24 April, 2019 : 1:10 pm ৮৪

 

নবীনগর।।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলা খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর ১০ টাকা দরের ৩৮ বস্তা চাউল বাজারের দোকান থেকে উদ্ধার করার খবর পাওয়া গেছে। তবে খাদ্য নিয়ন্ত্রুক কর্মকর্তা জানায়,সরকারি সিলমারা ৭বস্তা চাউল জব্দ করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার(২৩/০৪) উপজেলার বাইশমোজা বাজারে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দারিদ্র বান্ধব কর্মসুচী হিসাবে হত দরিদ্রদের জন্য ১০টাকা কেজী চাউল বিতরনের এসব চাউল বাজারে বিক্রী করতে দেখে এলাকার স্থানীয় লোকজন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাসুমকে অবগত করেন। নির্বাহী কর্মকর্তা দ্রুত পুলিশসহ খাদ্য পরিদর্শক নুরুজ্জামানকে ঘটানাস্থলে পাঠান। পুলিশ উপ-পরিদর্শক মো. আজিজকে নিয়ে খাদ্য পরিদর্শক নুরুজ্জামান বাজারে চাউল ব্যবসায়ী সামছুদ্দিন মিয়ার দোকানে অভিযান চালিয়ে সরকারি ওই সকল বস্তা উদ্ধার করেন। পুলিশ উপ-পরিদর্শক মো. আজিজ জানায়, বিকালে সরকারি সিল মারা ৭বস্তা চাউল থানায় আনান পর খাদ্য নিয়ন্ত্রন কর্মকর্তার কাছে হস্তান্তর করা হয়।
এ ব্যাপারে বাইশ মোজা বাজারে চাউল ব্যাবসায়ী দোকানদার সামছুদ্দিন বলেন, সরকারি চাউল বিতরনের ডিলার জিয়াউদ্দিন মিয়ার চাচা খাজা খাইরুদ্দিন মিয়ার কাছ থেকে আমি ৩৮ বস্তা এ চাউল কিনেছি, এ গুলো সরকারি না কিসের চাউল তা আমি জানি না। নাম প্রকাশ না করার শর্তে খাদ্য নিয়ন্ত্রক অধিদপ্ততরের একটি সুত্র জানায়, নবীনগর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের চাউল ডিলারদের সাথে আতাত করে খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা মো. সামছুল হুদা বাজারের সরকারি এসব চাউল বিক্রীর সহায়তা করে আসছে। তবে খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা তার বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, এসব ঘটনার সাথে আমি মোটেও জড়িত নই।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাসুম বলেন, স্থানীয়দের কাছ থেকে এ খবর পেয়ে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে, খাদ্য অধিদপ্তরের সীলকৃত ৭বস্তা চাউল জব্দ করা হয়েছে,বাকি যে চাউলের বস্তার কথা বলা হচ্ছে এ গুলো ভিজিডি কর্মসূচির চাউল। এ গুলো কিভাবে বাজারে এলো এদের সাথে কারা জড়িত এর জন্য ৪সদস্য বিশিষ্ট উচ্চতর তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটিকে আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের সময়সীমা বেধেঁ দেওয়া হয়েছে। প্রতিবেদনের প্রেক্ষিতে জড়িতদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে।

[gs-fb-comments]