নবীনগর।।
একসময় এই চিকিৎসালয়ে অনেক লোকজন চিকিৎসা সেবা নিতে আসত,বলতে কি, লাইন দরে চিকিৎসা নেওয়ার জন্য ঠাই দাঁড়িয়ে থাকত।এই স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ছিল ডাক্তার,ছিল ফার্মাসিস্ট, ছিল সহকারী এবং ভিজিটর। যাদের কাছ থেকে সকল জনগণ চিকিৎসা নিতে পারত, বিশেষ করে মা বোনদের গর্ভপাতের সঠিক সেবা পেত ভিজিটর দের কাছ থেকে।যার ফলে গর্ভপাতের সময় অদক্ষ দায়দের হাত থেকে প্রাণ হারানো ভয় ছিল কম।
কিন্তু দুঃখ জনক বিষয় হল আমাদের সেই দাতব্য চিকিৎসালয় এর পুরনো টিনসিটের স্থাপনাটি এবং ইট বালি সিমেন্টের তৈরি বহুতলা ভবনটি ঠাই দাড়িয়ে রয়েছে, নেই আগের মত ডাক্তার, ফার্মাসিস্ট, সহকারী, ভিজিটর।তাই এখন লোকজনের ও আনাগুনা দেখা যায়না চিকিৎসা কেন্দ্রে।
সরকারের স্বাস্থ্য অধিদফতরের পাঠানো ওষুধ ও বিভিন্ন স্বাস্থ্য পরীক্ষা সরঞ্জাম এই খানে পাঠানো হচ্ছে ঠিকই কিন্তু তা আর ব্যবহার করা হয়না। আর কি করে হবে কাউকে ত দেখতে পায়না চিকিৎসা কেন্দ্রে।
আর বিশেষ করে দক্ষ ভিজিটর না থাকায় গ্রামের মা বোনেরা গর্ভপাতের সময় পরতে হচ্ছে মারাক্তক ঝুকিতে।