ঢাকা।।

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী পুননির্বাচত হওয়ায় উভয় দেশের ক্রমবর্ধমান দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক আরও বাড়বে বলে মন্তব্য করেছেন দিল্লিতে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী।

মঙ্গলবার (২ জুলাই) হরিয়ানায় এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

দিল্লির বাংলাদেশ হাইকমিশন জানায়, হরিয়ানার ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব ম্যানেজমেন্টে (আইআইএম) আয়োজিত ‘বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক’- শীর্ষক সেমিনারে মূল বক্তব্য রাখেন সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী।

দিল্লিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর গতিশীল নেতৃত্ব দু’দেশের মধ্যে  দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতা সমন্বিত কৌশলগত অংশীদারিত্বের সব স্তর অতিক্রম করেছে।

সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীর উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন,  বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক একটি ‘সোনালি অধ্যায়’ সূচনা করেছে। দুই দেশের সম্পর্ক বর্তমানে ‘প্রতিবেশী কূটনীতি’র রোল মডেল হিসেবে বিশ্বের অন্যান্য দেশগুলোর সামনে আবির্ভূত হয়েছে।

তিনি সন্ত্রাসবাদবিরোধী সহযোগিতা, নিরাপত্তা, জ্বালানি, দ্বিপক্ষীয় ও উপ-আঞ্চলিক সংযোগ, পানি বণ্টন, বাণিজ্য ও বিনিয়োগ, ঋণ, প্রতিরক্ষা সহযোগিতা এবং জনগণের সঙ্গে জনগণের যোগাযোগ বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্কের মূল বৈশিষ্ট্য হিসেবে উল্লেখ করেন।

বাংলাদেশে রোহিঙ্গা সংকটের কথা উল্লেখ করে সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী বলেন, মিয়ানমার তার নিজ দেশের নাগরিকদের ফিরিয়ে নেওয়ার জন্য দেশটির ওপর চাপ প্রয়োগে ভারতসহ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের ক্রমাগত সমর্থন প্রত্যাশা করছে বাংলাদেশ। এই সংকটের চূড়ান্ত সমাধান কেবল তখনই সম্ভব হবে, যখন মিয়ানমার তার নাগরিক হিসেবে রোহিঙ্গাদের স্বীকৃতি দেবে। একই সঙ্গে দশ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গাকে দেশে ফিরিয়ে নেবে।

সেমিনারে অন্যান্যদের মধ্যে ভারতের সংসদ সদস্য ড. সুব্রামানিয়ান স্বামী বক্তব্য রাখেন।