রাঙামাটি।।

রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলায় পাহাড় ধসে মাটিচাপা পড়ে এক শিশুসহ দুজন নিহত হয়েছেন। রোববার দুপুরে উপজেলার কলাবাগান মালি কলোনি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

রাঙামাটির জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশীদ দুজন নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। নিহতরা হলেন- উজ্জ্বল মল্লিক (৩) ও তাহমিনা বেগম (২৫)।

এলাকাবাসী জানায়, রোববার রাত থেকে প্রবল বর্ষণ শুরু হলে সোমবার দুপুর ১২টার দিকে কাপ্তাই উপজেলার কলাবাগানের মালি কলোনির পাহাড়ের পাদদেশে থাকা দুটি ঘরের ওপর পাহাড় ধসে পড়ে। এ সময় ঘরের ভেতরে থাকা সুনীল মল্লিকের পরিবারের উজ্জ্বল মল্লিক ও গফুর মিয়ার পরিবারের তাহমিনা বেগম ছাড়া সবাই বের হতে সক্ষম হন।

এলাকাবাসী ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা উজ্জ্বল মল্লিকের মরদেহ উদ্ধার করে। পরে তাহমিনা বেগমকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

চন্দ্রঘোনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ারুল ইসলাম চৌধুরী বেবী জানান, পাহাড় ধসে এক শিশু ও এক নারী মারা গেছেন।

অন্যদিকে বান্দরবানের চিম্বুক সড়কের ৯ মাইল এলাকায় পাহাড় ধসের কারণে রুমা ও থানচি উপজেলার সড়ক যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। সোমবার প্রবল বর্ষণের সময় ওই এলাকায় সড়কের ওপর একটি বিশাল পাহাড় ধসে পড়লে যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়।

এছাড়া ভারী বর্ষণে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়েও পাহাড় ধসের আশঙ্কা করা হচ্ছে। তাই এসব পাহাড়ের পাদদেশে বসবাসরতদের নিরাপদ আশ্রয়ে সরে যেতে মাইকিং করছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

সোমবার দুপুর ১২টা থেকেই ক্যাম্পাসে পাহাড়ের পাদদেশে বসবাসরতদের মাইকিং করে সতর্ক করা হচ্ছে। নিরাপদ আশ্রয়ের জন্য দুটি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে। তবে ল্যাবরেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজ ও চাকসুতে আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হলেও বেলা ২টা পর্যন্ত কাউকে সেখানে আশ্রয় নিতে দেখা যায়নি। এদিন ভোর থেকেই অব্যাহত রয়েছে ভারী বৃষ্টিপাত।