হাসিনা- মমতার বৈঠক নিয়ে আলোচনার ঝর

22 November, 2019 : 12:12 pm ২৪২

ডেস্ক।।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আনুষ্ঠানিক আমন্ত্রণে কলকাতায় গোলাপি বলে প্রথম দিন রাতের ভারত-বাংলাদেশ টেস্ট ম্যাচ দেখতে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ শুক্রবার সকালেই  কলকাতায় পৌঁছেছেন। তবে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, এই দুজনের কেউই আজ কলকাতায় আসছেন না। অবশ্য কেন্দ্রীয় সরকারের কোনও শীর্ষ নেতা উপস্থিত না থাকলেও আজ সন্ধ্যায় তাজ বেঙ্গল হোটেলে হাসিনার ঘরে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে একান্ত বৈঠকের দিকে তাকিয়ে রয়েছেন দুই দেশের রাজনৈতিক মহল। এই বৈঠক ঘিরে সর্বস্তরে আগ্রহ তুঙ্গে। ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের যেসব অমিমাংসিত সমস্যা রয়েছে তার অধিকাংশের সঙ্গে জড়িত পশ্চিমবঙ্গ। তিস্তাসহ অভিন্ন নদীগুলোর পানি বণ্টনের বিষয়টি অনেক দিন ধরে ঝুলে রয়েছে। স্বাভাকিভাবেই মমতার সঙ্গে বৈঠকের কথা জানাজানি হলেও আলোচনায় ওঠে আসে তিস্তা নিয়ে কোনও ইঙ্গিত কি মিলতে পারে? গত বছর শান্তিনিকেতনে বিশ্বভারতীর সমাবর্তন অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আসা শেখ হাসিনাকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বাংলাদেশের ইলিশ পাঠানোর কথা বলায় হাসিনা বলেছিলেন, আপনি পানি দিন। আমিও ইলিশ পাঠাব। আজকের বৈঠকে অবশ্য তিস্তা নিয়ে আলোচনার সম্ভবাবনা কম বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষক মহল। বরং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবর্ষ এবং স্বাধীন বাংলাদেশ সরকারের ৫০বছর পূর্তিকে কেন্দ্র করে কলকাতায় মুজিবের স্মৃতি বিজড়িত বাড়িগুলির সংরক্ষণ এবং কলকাতায় প্রবাসী বাংলাদেশ সরকার পরিচালিত হয়েছিল যে বাড়ি থেকে সেটিতে একটি জাদুঘর তৈরির বিষয় নিয়ে আলোচনা হতে পারে। ঢাকায় আয়োজিত বাংলাদেশ সরকারের ৫০ বছর পূর্তি অনুষ্ঠানে মমতাকে আমন্ত্রণও জানাতে পারেন শেখ হাসিনা। সেই অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী উপস্থিত থাকবেন বলে জানা গেছে। কলকাতায় প্রবাসী সরকার পরিচালনা হয়েছে যে বাড়িটি থেকে সেটি শেখ হাসিনা আগেও মমতার কাছে মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর করার কথা বলেছিলেন। আজ শেখ হাসিনার সঙ্গে মমতার তিনবার দেখা হবে। ইতিমধ্যেই টেলিফোনে হাসিনার সঙ্গে মমতার এক দফা কথা হয়েছে। বৃহস্পতিবার মমতা নিজেই বলেছেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তিন বার আমার দেখা হবে। দুপুরে ইডেনে, সন্ধ্যায় তাজ বেঙ্গল হোটেলে, তার পর আবার ইডেনে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে। মমতা আরও বলেছেন, আমরা শেখ হাসিনাকে ভালবাসি। বাংলাদেশকে, বাংলার মানুষকে ভালবাসি। ভাষা, সংস্কৃতি, সভ্যতা আমাদের সবইতো এক।
মমতার সঙ্গে মিলে শেখ হাসিনা এদিন ভারত-বাংলাদেশ টেস্ট ম্যাচের শুরুর জন্য ইডেনের ক্লাব হাউসে ঘণ্টা বাজাবেন। এদিকে জানা গেছে, মমতা তাজ বেঙ্গলে হোটেলে শেখ হাসনাকে শাড়িসহ বিশ্ববাংলার নানা স্মারক ও মিষ্টি উপহার দেবেন। রাতেই শেখ হাসিনা ঢাকা ফিরে যাবেন। হাসিনাও মমতাকে শাড়ি এবং বাংলাদেশের মিষ্টি উপহার দেবেন বলে জানা গেছে।

[gs-fb-comments]
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com