ব্রাক্ষনবাড়িয়া এক আওয়ামীলীগের ছেলের কান্ড

9 February, 2020 : 7:24 am ২১৮

ব্রাক্ষনবাড়িয়া।।

মেয়েকে উঠিয়ে নেয়ার পর আতঙ্কে বাড়ি ছেড়েছেন মা-ও। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী এক নেতার ছেলের এই অপহরণ ঘটনায় মামলা করলে এলাকা ছাড়া করার হুমকি দেয়া হয়েছে তাকে। আর সেকারণে ঘটনার পর থেকে বাসা তালা দিয়ে অন্যত্র অবস্থান করছেন তরুণীর মা। শহরের পূর্ব মেড্ডা বক্ষব্যাধি হাসপাতাল এলাকার হাজী ইউসুফের মেয়েকে বৃহস্পতিবার বিকেলে বাড়ি থেকে উঠিয়ে নিয়ে যান আওয়ামী লীগ নেতার ছেলে। এসময় তার সঙ্গে ছিলো আরো কয়েকজন। অস্ত্র প্রদর্শন করে ফিল্মি স্টাইলে এ ঘটনা ঘটানো হয় বলে স্থানীয়রা জানান। মুহূর্তেই এলাকা ছাড়িয়ে চাঞ্চল্যকর এঘটনাটি শহরে ছড়িয়ে পড়ে। আওয়ামী লীগের নেতাদের কানেও পৌঁছে ত্বরিত ওই ঘটনা। টক অব দি টাউন হয়ে উঠে নেতার ছেলের তরুণী অপহরণ ঘটনা। শনিবার মেড্ডায় ওই বাড়িতে গিয়ে তালা দেখতে পাওয়া যায়। তরুণীর বড় মামা হাজী নাজমুল ইসলাম দারু জানান- ঘটনার পরপরই তার বোন পৌরসভার সংরক্ষিত কাউন্সিলর হোসনে আরা বাবুলকে নিয়ে ওই নেতার কাছে যান। তখন বিষয়টি দেখছেন বলে তাদেরকে আশ্বস্ত করেন নেতা। কিন্তু ৩ দিন পেরিয়ে গেলেও এর সুরাহা হয়নি। বরং মামলা না করতে হুমকি দেয়া হয়েছে। দারু জানান- নেতার ছেলের হেফাজতেই আছে তার ভাগ্নী। তিনি আরো জানান- নেতার এক চাচাতো ভাইয়ের মেয়েকে আমাদের এক আত্মীয়ের কাছে বিয়ে দেয়। এই সুবাদে নেতার ছেলে এখানে আসা যাওয়া করতো। তবে তার ভাগ্নীর সাথে ওই ছেলের কোন সম্পর্ক ছিলো কিনা সেটি তিনি জানেন না। ওই তরুণী শহরের আনন্দময়ী উচ্চ বিদ্যালয়ে অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত পড়াশুনা করে । তরুণীর পিতা হাজী ইউসুফ মারা যান ১৫/১৬ বছর আগে। ইউসুফ প্রবাসী ছিলেন। তার মৃত্যুর পর একমাত্র কন্যাকে নিয়ে তার বোন মেড্ডার ওই বাড়িতে বসবাস করে আসছেন। দারু জানান- বিষয়টি নিয়ে তারা আতঙ্কে আছেন। ৩ দিন পেরুলেও ভাগ্নীর সন্ধান পাননি। নেতার ছেলের সঙ্গে ওই তরুণীর আগে থেকে প্রেম ভালোবাসার সম্পর্ক ছিলো কিনা, নাকি উঠিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে তা স্পষ্ট নয়। ওই তরুণী কোথায় আছেন তাও জানা যায়নি। জেলা আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। সদর মডেল থানার এক কর্মকর্তা বলেন ঘটনা তারা শুনেছেন। তবে মেয়ের পরিবারের কাছ থেকে কোন অভিযোগ পাননি। জেলা আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী ওই নেতার ছেলে এরআগে আখাউড়ায় অস্ত্রসহ ধরা পড়ে। গত বছরের ২৫শে জানুয়ারি গভীররাতে আখাউড়া পৌর শহরের মসজিদ পাড়া থেকে নেতার ছেলেসহ ৪ জনকে আটক করে পুলিশ। এসময় তাদের বহনকারী প্রাইভেটকার তল্লাশি করে ১টি পিস্তল ও ২ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। পরে তাকে বাদ দিয়ে পুলিশ ওই ঘটনায় নেতার ছেলের সঙ্গীদের বিরুদ্ধে মামলাটির অভিযোগপত্র দেয়। নেতার বেপরোয়া ছেলের বিরুদ্ধে রয়েছে আরো নানা অভিযোগ।

[gs-fb-comments]
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com