চুল কেটে, ছ্যাঁকা দিয়ে অপহরণকারী সাজানো ও মধ্যযোগীয় কায়দায় নির্যাতন

16 February, 2020 : 1:07 pm ১০৪

ব্রাহ্মণবাড়িয়া।।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এক নারীর উপর মধ্যযুগীয় নির্যাতন চালানো হয়েছে। ওই নারীর চুল কেটে, ছ্যাঁকা দিয়ে শিশু অপহরণকারী বলে চালানোর চেষ্টা করা হয়। এ ঘটনায় মোস্তাক আহমেদ ফয়সাল নামে প্রধান অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল শনিবার রাতে পৌর এলাকার কাউতলীর এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্ত ফয়সাল একজন চিহ্নিত অপরাধী। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় অন্তত ১৬ মামলা রয়েছে। নির্যাতনের শিকার ওই নারী জানান, তার বাড়ি হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার হরষপুর এলাকায়। অভিযুক্ত ফয়সালের বাড়িও ওই এলাকাতেই। ফয়সাল বিয়ে করেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কাউতলীতে। পূর্ব পরিচয়ের সূত্র ধরে শনিবার দুপুরে ফয়সাল জানায়, তার বউয়ের সাথে ঝামেলা হয়েছে। বিষয়টি সমাধানের জন্য বাসায় আসতে। ফয়সাল ওই নারীকে ফোন করে আশুগঞ্জের উজান ভাটি হোটেলের সামনে আসতে বলেন। সেখানে আসার পর ফয়সাল এসে তাকে কাউতলীর শ্বশুরের বাসায় নিয়ে যায়। সেখানে যাওয়ার পর টাকা দাবি করে ফয়সাল। ভাইয়ের কাছ থেকে বিকাশের মাধ্যমে ১০ হাজার টাকাও এনে দেয়। তার কাছ থেকেও নগদ চার হাজার টাকা ও মোবাইল ফোন সেট নিয়ে নেয়। খালি স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর রাখা হয়। আরো টাকার জন্য শুরু হয় নির্যাতন। তার চুল কেটে দেওয়া হয়। লোহার চাসনি নিয়ে গরম ছ্যাঁকা দেওয়া হয় তার শরীরের বিভিন্নস্থানে। একপর্যায়ে ৯৯৯ নম্বরে কল করে শিশু অপহরণকারী আটক করার কথা বলা হয়। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার এসআই মো. মোতালেব জানান, ৯৯৯ থেকে ফোন পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। সেখানে গিয়ে ওই নারীর ওপর নির্যাতনের বিষয়টি দেখতে পেয়ে ফয়সালকে আটক করা হয়। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

[gs-fb-comments]