বিজয়নগর।।
বিজয়নগরে প্রবাসী সহ দুটি বিয়ে ভেঙ্গেছে  প্রশাসন এবং হোম কোয়ারেন্টাইনে না থাকার অপরাধে এক প্রবাসীকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।আজ শুক্রবার সকালে সহকারী কমিশনার ভুমি মো: মাহবুবুর রহমান  ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে বিয়ে ভাঙ্গেন এবং জরিমানা আদায় করেন । এসময় উপস্তিত ছিলেন ইসলামপুর পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ ওসি তদন্ত আতিকুর রহমান ও এ,এস,আই হাবিবুর রহমান। মাহবুবুর রহমান জানান, উপজেলার বুধন্তি ইউনিয়নের সেমড়া গ্রামের মৃত হাসিম আলির ছেলে কুসুম আলী ১০ ই মার্চ কুয়েত থেকে দেশে আসেন এবং আগামী ২২ শে মার্চ বিয়ের অনুস্টান ঠিক করেন এবং ১৪দিন  হোমকোয়ারেন্টেন এ না থেকে তিনি বিভিন্ন জায়গায় ঘুরাঘুরি করছিলেন এবং সকালে বাড়িতে গিয়ে পাওয়া যায়নি। পরিবারের লোকজন বিয়ে ভাঙ্গার মুচলেকা দেয় ও কোয়ারেন্টে থাকার অঙ্গিকার  করে এবং ১৫ হাজার টাকা জরিমানা প্রদান করে। এর আগে সকালে একই ইউনিয়নের খাতাবাড়ি গ্রামের মন্নাফ মিয়ার  মেয়ে হুছনা আক্তারের সাথে একই ইউনিয়নের বিরপাশা গ্রামের আওয়াল মিয়ার ছেলে মমিন মিয়ার বিয়ে ভেঙ্গে দেয় প্রশাসন। এসময় স্তানীয় মেম্বার জামাল মিয়া ও কনের বাবা মন্নাফ মিয়া বিয়ে পেছানোর কথা বলে মুচলেকা দেয়। অথচ জেলা সিভিল সার্জনের মেয়ের বিয়ে হল ঘটাকরে বহুলোকের সমাগমের মাধ্যমে।
"/>

বিজয়নগরে প্রবাসী সহ দুটি বিয়ে ভাংল প্রশাসন

20 March, 2020 : 11:45 am ১৭১
বিজয়নগর।।
বিজয়নগরে প্রবাসী সহ দুটি বিয়ে ভেঙ্গেছে  প্রশাসন এবং হোম কোয়ারেন্টাইনে না থাকার অপরাধে এক প্রবাসীকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।আজ শুক্রবার সকালে সহকারী কমিশনার ভুমি মো: মাহবুবুর রহমান  ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে বিয়ে ভাঙ্গেন এবং জরিমানা আদায় করেন । এসময় উপস্তিত ছিলেন ইসলামপুর পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ ওসি তদন্ত আতিকুর রহমান ও এ,এস,আই হাবিবুর রহমান। মাহবুবুর রহমান জানান, উপজেলার বুধন্তি ইউনিয়নের সেমড়া গ্রামের মৃত হাসিম আলির ছেলে কুসুম আলী ১০ ই মার্চ কুয়েত থেকে দেশে আসেন এবং আগামী ২২ শে মার্চ বিয়ের অনুস্টান ঠিক করেন এবং ১৪দিন  হোমকোয়ারেন্টেন এ না থেকে তিনি বিভিন্ন জায়গায় ঘুরাঘুরি করছিলেন এবং সকালে বাড়িতে গিয়ে পাওয়া যায়নি। পরিবারের লোকজন বিয়ে ভাঙ্গার মুচলেকা দেয় ও কোয়ারেন্টে থাকার অঙ্গিকার  করে এবং ১৫ হাজার টাকা জরিমানা প্রদান করে। এর আগে সকালে একই ইউনিয়নের খাতাবাড়ি গ্রামের মন্নাফ মিয়ার  মেয়ে হুছনা আক্তারের সাথে একই ইউনিয়নের বিরপাশা গ্রামের আওয়াল মিয়ার ছেলে মমিন মিয়ার বিয়ে ভেঙ্গে দেয় প্রশাসন। এসময় স্তানীয় মেম্বার জামাল মিয়া ও কনের বাবা মন্নাফ মিয়া বিয়ে পেছানোর কথা বলে মুচলেকা দেয়। অথচ জেলা সিভিল সার্জনের মেয়ের বিয়ে হল ঘটাকরে বহুলোকের সমাগমের মাধ্যমে।

[gs-fb-comments]