মনিপুর বন্দরবাজারে দোকান ভাংচুর লুটতরাজের ঘটনায় দ্রুত বিচার আইনে মামলা দায়ের

21 August, 2020 : 1:09 pm ৪৫

বিজয়নগর।।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলার পত্তন ইউনিয়নের মনিপুর বন্দরবাজারে দোকানপাটে হামলা ভাংচুর ও লুটতরাজের ঘটনায় দ্রুত বিচার আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।বৃহস্পতিবার (২০ আগস্ট) সকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া চীপ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের দ্রুত বিচার আইন ট্রাইব্যুনালে মনিপুর বন্দরবাজার পরিচালনা কমিটির সভাপতি আব্দুল করিম বাদী হয়ে ১৩ জন আসামীর নাম উল্লেখ করে মামলাটি দায়ের করেন।মামলার আসামীরা হলেন- লিলু মিয়া, এবিএম মাসুম, জাকির মিয়া, সামসু মিয়া, সোহেল মিয়া, নান্নু মিয়া, ফরিদ মিয়া, আসকর, শাহীন মিয়া, নোয়াব মিয়া, ফারুক মিয়া, রাহিম মিয়া ও রুসমত আলী।ব্রাহ্মণবাড়িয়া চীপ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের দ্রুত বিচার আইন ট্রাইব্যুনালে বিজ্ঞ বিচারক বাদীর অভিযোগ গ্রহণ করে বিজয়নগর থানা পুলিশকে আগামী ৭ কার্য দিবসের মধ্যে তদন্তপূর্বক মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আদেশ দেন।মামলার এজাহারে, মনিপুর বন্দরবাজার পরিচালনা কমিটির সভাপতি আব্দুল করমি অভিযোগ করেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের সাথে বিজয়নগর উপজেলার সরাসরি সংযোগ সড়ক শেখ হাসিনা (সীমনা-ব্রাহ্মণবাড়িয়া) সড়কের মনিপুর ব্রীজের পশ্চিম পাশে ধুলিবাড়ি সংলগ্ন সড়কের দক্ষিণপাশ অবৈধভাবে দখল করে গরুর খামার নির্মাণ করেন একই এলাকার ইউনুস মিয়ার ছেলে লিলু মিয়া গংরা। এ ঘটনায় স্থানীয় ইউপি সদস্য সেলিম মেম্বার জনস্বার্থে অবৈধ দখলদার লিলু মিয়া গংদেরকে বাঁধা দেন। এ ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ের জন্য গত ৮ আগস্ট ২০২০ ইং রোজ শনিবার সকালে স্থানীয় ইউপি ভূমি উপসহকারী কর্মকর্তা সরজমিনে এসে ঘটনার সত্যতা পেয়ে অবৈদ দখলদার লিলু মিয়া গংদের অবৈধ গরুর খামারটি উচ্ছেদের নির্দেশ দেন। এতে অবৈধ দখলদার লিলু মিয়া গংরা ক্ষুব্ধ হয়ে বিকেল সাড়ে ৩ টায় মনিপুর বন্দরবাজারে সেলিম মেম্বারের উপর হামলা করে। এসময় সেলিম মেম্বারের গোষ্ঠীর লোকজন সেলিম মেম্বারকে হামলাকারীদের হাত থেকে বাঁচাতে গিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অর্ধশতাধিক লোকজন আহত হন। এ ঘটনার জেরধরে একই দিন সংঘর্ষের কিছু সময়ের পরেই বিকেল ৫ টায় লিলু মিয়া গংরা মনিপুর বন্দরবাজারের সাইফুল ইসলামের দোকান, শাহাবুদ্দিন এর দোকান, কবির মিয়ার দোকান, মাহফুজ মিয়ার দোকান ও আমিন উদ্দিন ওরফে ছোট্টন মিয়ার দোকানে হামলা ভাংচুর ও লুটতরাজ চালিয়ে বাজারে ত্রাস ও আতঙ্ক সৃষ্টি করে।্মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ ওসমান গণি (৩) বলেন, বাদীর অভিযোগ গ্রহণ করে বিজ্ঞ আদালত বিজয়নগর থানা পুলিশকে আগামী ৭ কার্য দিবসের মধ্যে তদন্তপূর্বক মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আদেশ দেন।

[gs-fb-comments]