ফ্রান্সে মহানবী হযরত মোহাম্মদ (সা:) এর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শনের প্রতিবাদে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রতিবাদ সমাবেশ

29 October, 2020 : 12:03 pm ৬২

ব্রাক্ষণবাড়িয়া।।
ফ্রান্সে মহানবী হযরত মোহাম্মদ (সা:) এর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শনের প্রতিবাদে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২৯ অক্টোবর বৃহস্পতিবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুছিয়া মাদ্রাসা প্রাঙ্গণ থেকে মিছিলটি বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদিক্ষণ করে প্রেসক্লাবে সামনে প্রতিবাদ সমাবেশ করে।এদারায়ে তালিমিয়াহ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার উদ্যাগে আয়োজিত মিছিলে জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে কয়েক হাজার মানুষ অংশ গ্রহণ করে। জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুছিয়ার প্রিন্সিপাল মুফতি মুবাররক উল্লাহ’র সভাপত্বিতে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জামিয়া দারুল আরকামের মহাপরিচালক মাওলানা সাজিদুর রহমান, মাওলানা আব্দুর রহিম কাসেমী, মুফতি নোমান হাবিবী, মুফতি বোরহান উদ্দিন কাসেমীসহ প্রমুখ।এ সময় বক্তারা বলেন, আমরা গভীর ক্ষোভ ও উদ্বেগের সাথে লক্ষ্য করছি যে, ফরাসি ঘৃণিত পত্রিকা শার্লি এবদো কর্তৃক প্রকাশিত বিশ্বের সর্বশ্রেষ্ঠ আদর্শ মহাপুরুষ মহানবী হজরত মোহাম্মদকে (সা:) নিয়ে ব্যঙ্গাত্মক কার্টুন ফরাসি সরকার পুলিশ প্রহরায় অট্টালিকার দেয়ালে টাঙিয়ে প্রদর্শনের ব্যবস্থা করেছে।একবিংশ শতাব্দীতে কোনো সভ্য জাতি, দেশ বা সরকার কারো মৌলিক বিশ্বাসের ওপর এভাবে আঘাত হানতে পারে না। এর আগেও ২০১৫ সালে এ পত্রিকাটি রাসূলকে (সা:) নিয়ে ব্যঙ্গাত্মক কার্টুন প্রকাশ করেছিল। এ নীতিহীন অপকর্মের ফলে বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে সহিংসতার সৃষ্টি হয়েছিল যাতে বহু মানুষ নিহত হয়েছে।শুধু মুসলমান নয় বরং বিশ্বের শান্তিকামী দেশ ও মানুষ থেকে ধিক্কার ও ঘৃণা কুড়িয়েছিল ফ্রান্স। এবার শার্লি এবদোর সাথে সাথে ফরাসি সরকারের এই কাণ্ডজ্ঞানহীন আচরণ শান্তিকামী বিশ্ববাসীকে হতবাক করেছে। এই নিন্দনীয় কাজ প্রতিটি মুসলমানসহ বিশ্বের প্রতিটি বিবেকবান মানুষের হৃদয়ে আঘাত করেছে।ফ্রান্স বরাবরই বিভিন্ন দেশকে গণতন্ত্র ও মানবাধিকারের ছবক দিয়ে আসছে। নিজেদের সভ্য হিসেবে বিশ্ব দরবারে উপস্থাপনের প্রয়াস চালিয়ে আসছে। কিন্তু ধর্মীয় বিশ্বাসের ওপর এমন ঘৃণ্য আঘাত কিভাবে তাদের দেশ ও জাতিকে সভ্য হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করে তা বিবেক সম্পন্ন মানুষের বোধগম্য নয়। এগুলো কোনোভাবেই বাক স্বাধীনতা নয় বরং বাক স্বাধীনতার নামে চরম ধৃষ্টতা।এসব ঘৃণ্য কাজের পেছনে সহিংসতাকে উসকে দেয়ার একটি অপপ্রয়াস থাকতে পারে বলে বিশ্ব বিবেক মনে করে। এগুলো কি শুধু অবমাননা, না কি এর পেছনে মুসলমানদের বিরুদ্ধে কোনো গভীর ষড়যন্ত্র রয়েছে তা বিবেচনায় নেয়ার জন্য আমরা মুসলিম নেতৃবৃন্দসহ বিশ্ববাসীর প্রতি আহবান জানাচ্ছি।এমন নিকৃষ্ট কর্মকান্ড বন্ধে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণে জাতিসংঘ, ওআইসি, আরবলীগসহ সকল মুসলিম দেশের নেতৃবৃন্দ ও শান্তিকামী মানুষের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি। এমন ঘটনা প্রতিরোধে মুসলিম উম্মাহর উচিৎ ঐক্যবদ্ধভাবে জোরালো প্রতিবাদ করা।
এ সময় বক্তারা, ফ্রান্সের ইসলাম বিদ্বেষী আচরণের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে ফ্রান্সের সকল পণ্য মুসলিম উম্মাহকে বর্জনের আহবান জানানো হয়।
সমাবেশ শেষে বিক্ষোভকারীরা ফ্রান্সের জাতীয় পতাকায় অগ্নিসংযোগসহ ওই দেশের প্রেসিডেন্টেরর কুশপুত্তলিকা দাহ করে। এছাড়াও জেলার নবীনগর ও আশুগঞ্জ উপজেলাসহ বিভিন্ন উপজেলায় বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সমাবেশ হয়েছে।

[gs-fb-comments]