ব্রাহ্মণবাড়িয়ার প্রশাসন হলো হেফাজতের দাস– মোকতাদির চৌধূরী এমপি

7 October, 2021 : 4:13 pm ১২৬

ব্রাহ্মণবাড়িয়া।।

হেফাজতের তাণ্ডবের ঘটনায় মন্ত্রী, এমপি, প্রশাসনসহ স্থানীয় জনগণকে একহাত নিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ (সদর-বিজয়নগর) আসনের সংসদ সদস্য র. আ. ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী। তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘অনেক মন্ত্রী, এমপির কাপড়ের নিচে থাকে হেফাজতের নেতারা। প্রশাসন চলে হেফাজত নেতাদের কথায়। পুলিশ আসামি ধরে, ছাড়ে তাদের নির্দেশে।’ তাণ্ডব প্রতিরোধে শ্রমিকসহ সাধারণ মানুষ এগিয়ে না আসার সমালোচনাও করেন।
আজ বৃহস্পতিবার ০৭ অক্টোবর বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জাতীয় শ্রমিক লীগের দ্বি-বার্ষিক সাধারণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি এ অভিযোগ ও সমালোচনা করেন। শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত ভাষা চত্বরে জেলা শ্রমিক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলাউদ্দিন আলালের সভাপতিত্বে সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল-মামুন সরকারসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন।
তিনি আরো বলেন, ‘ব্রাহ্মণবাড়িয়ার প্রশাসন হলো হেফাজতের দাস। হেফাজতের ইচ্ছায় চলে প্রশাসন। কাকে ছাড়বে কাকে ধরবে সেটা পুলিশকে নির্দেশ করে হেফাজত। তবে হেফাজতিরা মিথ্যাবাদী। তারা বঙ্গবন্ধুর শাহাদাৎ বার্ষিকি পালন করে সেটা ভালো কথা। কিন্তু পাঁচ হাজার কোরআন খতম দেওয়ার বিষয়টি একেবারে মিথ্যা। আর তারা বঙ্গবন্ধুর শাহাদাৎ বার্ষিকি পালন করার কারণ হলো এবারের ঈদে তাদের সদগাহ, লিল্লাহ, যাকাত কমে গেছে।’
এমপি আক্ষেপ করে বলেন, ‘জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের বাড়ি পুড়িয়ে দেওয়া হলো কিন্তু কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক দেখতে এলেন না। ছাত্রলীগ নেতাদের বাড়ি ভাঙচুর হলো কিন্তু এমপিরা (স্থানীয়) কোনো খোঁজ নিলেন না।’ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতের তাণ্ডবের সময় স্থানীয় অনেক নেতাই ‘পালিয়ে’ গিয়েছিলেন বলে তিনি অভিযোগ করেন।

[gs-fb-comments]
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com