নাসিরনগরে পানিবন্দী ২০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা

21 June, 2022 : 4:15 pm ৩৩

নাসিরনগর।।

নাসিরনগরে পাহাড়ি ঢলের কারণে উপজেলার সর্বত্রই পানি বাড়ছে।পানিবন্দী হয়ে পড়ায় আজ মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার ২০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করেছে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কার্যালয়।উপজেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রবিউল আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেন।এ ব্যাপারে রবিউল আলম বলেন, উপজেলার বেশ কয়েকটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আঙিনা, বারান্দা, বিদ্যালয়ে যাওয়ার রাস্তা পানিতে তলিয়ে গেছে। তাই উপজেলার ২০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শ্রেণি শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এ ছাড়া উপজেলার  গোয়ালনগর ও চাতলপাড় ইউনিয়নের প্রায় ২০ থেকে ২২টি বিদ্যালয় পানিবন্দী হওয়ার ঝুঁকিতে আছে।বন্ধ ঘোষণা করা বিদ্যালয়গুলো হল উপজেলার আন্দ্রাবহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ইটনা পূর্ব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পূর্ব বালিখোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কান্দিরপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, উত্তর ধানতলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, রোস্তমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, উড়িয়াইন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ইছাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, গঙ্গানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বলাউক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ফকিরদিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, টেকানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, নাসিরপুর পশ্চিম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, শ্রীঘর দক্ষিণ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ফান্দাউক ঋষিপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চাপরতলা পূর্ব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চাপরতলা পশ্চিম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পতৈর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চান্দেরপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও গোকর্ণ পূর্ব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।উড়িয়াইন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আরিফ মিয়া প্রথম আলোকে বলেন, বিদ্যালয়ের মাঠে এখন হাঁটুপানি। বিদ্যালয়ের বারান্দায়ও পানি চলে এসেছে। বিদ্যালয়ে আসা–যাওয়ার সামনের রাস্তা তলিয়ে যাওয়ায় কেউই বিদ্যালয়ে আসতে পারছে না।সাইয়াউক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দরবেশ মিয়া বলেন, বিদ্যালয়ের চারপাশে পানি। বিদ্যালয় বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। বিদ্যালয়ের ভেতরে পানি না ঢুকলেও আসার সব রাস্তা পানিতে তলিয়ে গেছে।উপজেলা প্রশাসন ও স্থানীয় লোকজন সূত্রে জানা গেছে, কয় দিন ধরে টানা বৃষ্টি ও ভারতের উজান থেকে আসা পাহাড়ি ঢলের পানি নাসিরনগরে ঢুকছে। এর মধ্যে গত রোববার রাতে ঢলের পানির তোড়ে উপজেলার কুন্ডা-গোকর্ণ সড়কের বেড়িবাঁধ এলাকার সেতুর দুই পিলার সরে যাওয়ায় সেতু মাঝখানের অংশ ডেবে গেছে। পরে গতকাল সোমবার সকালে জেলা প্রশাসক মো. শাহ্গীর আলম ও উপজেলা প্রশাসন ওই এলাকা পরিদর্শন করে সেতুর ওপর দিয়ে চলাচল বন্ধের নির্দেশ দেন। এতে কুন্ডা ইউনিয়ন ও উপজেলা সদরের সঙ্গে এই পথে গোকর্ণ ইউনিয়নের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার বুড়িশ্বর ইউনিয়নের শ্রীঘর আশ্রয়ণ প্রকল্প এলাকা পানিতে তলিয়ে গেছে। প্রকল্পের মধ্যে থাকা ২৩টি ঘরের মেঝেসমান পানি চলে এসেছে। প্রকল্পে ঘরের বাইরে হাটুসমান পানি। এ ছাড়া পাহাড়ি পানি তোড়ে দৌলতপুর আশ্রয়ণ প্রকল্পের সড়ক ভেঙে গেছে। লক্ষ্মীপুর ও রানিয়াচং আশ্রয়ণ প্রকল্পের রাস্তা পানিতে তলিয়ে গেছে। ভলাকুট আশ্রয়ণ প্রকল্পের চারপাশেও পানি এসেছে। এদিকে শ্রীঘর আশ্রয়ণ প্রকল্পের পরিবারগুলোকে শ্রীঘর এসইএসডিপি মডেল হাইস্কুল আশ্রয়ণকেন্দ্রে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।বন্যার পানির চাপ বাড়তে শুরু করায় ফসলী জমি ও অনেক পুকুরও ডুবে গেছে বলে অনেকেই জানান।

[gs-fb-comments]
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com