ঘুমিয়ে সময় পার করছেন তাঁত ব্যবসায়ীরা

16 September, 2015 : 7:51 am ১২১

আমাদের কথা ডেস্ক :
অন্যান্য বছর এমন সময় ক্রেতাদের আনাগোনায় মুখরিত থাকে টাঙ্গাইলের করটিয়া ও বাজিতপুরের দু’টি তাঁতের কাপড়ের বাজার। কিন্তু এবার ঈদের মৌসুমেও ক্রেতাশূন্য এ বাজার দু’টি।
ব্যবসায়ীরা বলছেন, সারা দেশে বন্যার কারণে পাইকারি ক্রেতারা দূর-দূরান্ত থেকে এসে তাঁতের কাপড় কেনার প্রতি আগ্রহ পাচ্ছেন না। আর এতে তাঁত শিল্প বন্ধ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কায় দিন কাটাচ্ছেন মালিক এবং শ্রমিকরা।
গল্প করে আর ঘুমিয়ে অনেকটা সময় পার করছেন ব্যবসায়ীরা। টাঙ্গাইলে দেশের অন্যতম বৃহৎ তাঁতের শাড়ি ও কাপড় বিক্রির দু’টি হাট এই করটিয়া ও বাজিতপুরে দেখা যায় এমন চিত্র। ঈদের আগে দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে এই হাঁটে শত শত পাইকারি ক্রেতা আসলেও এবার তাদের দেখা মিলছে না। তাই বেচা-কেনার কোনো উত্তেজনা নেই বাজার দু’টিতে। আর কাপড় বিক্রি না হওয়ায় চরম দুশ্চিন্তায় দিন পার করছেন ব্যবসায়ীরা।
ব্যবসায়ীরা জানান, ‘অন্যান্য ঈদের মতো এবার কেনাবেচা নেই। ব্যবসায় মন্দার প্রভাব।’ শ্রমিকরা জানান, ‘বেচা-বিক্রি না হওয়ায় যে কোনো মুহূর্তে কাজ বন্ধ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কায় আছি আমরা । সামনে ঈদ যদি কাজ বন্ধ হয়ে হয়ে যায় তাহলে কি করে পরিবার নিয়ে ঈদ পালন করবো জানি না।’ সাম্প্রতিক সময়ে সারা দেশে বন্যার কারণে তাঁত শিল্পে এমন ধ্বস নেমেছে বলে মন্তব্য ব্যবসায়ীদের। আর এ অচল অবস্থা চলতে থাকলে ঐতিহ্যবাহী তাঁত শিল্প বন্ধ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা তাদের।
টাঙ্গাইল করটিয়া হাট কাপড়-ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক শাজাহান আনছারী বলেন, ‘টাঙ্গাইলের বিভিন্ন স্থানে বন্যার প্রভাব পড়ায় এবারের ঈদে মানুষের কেনাকাটার পরিমাণ কম।’
টাঙ্গাইল জেলায় তাঁত মালিক রয়েছেন মোট ১০ হাজার জন। আর তাদের ৬৪ হাজার ১২০টি তাঁত রয়েছে। তাঁত শিল্পের সঙ্গে জড়িত রয়েছেন জেলার প্রায় দেড় লাখ শ্রমিক। সূত্র : সময় টিভি।

[gs-fb-comments]
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com