সামাজিক অস্থিরতায় শঙ্কিত সাধারণ মানুষ

20 September, 2015 : 9:26 am ১৬৫

আমাদের কথা ডেস্ক :

বর্তমান সময়ে দেশে বিভিন্ন ধরনের অসামাজিক কার্যকলাপ ঘটছে। ফলে দেশের মানুষের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হচ্ছে। আর এই ক্ষোভের কারণেই বিভিন্ন সময় পুলিশের সাথে সাধারণ মানুষের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটছে এবং প্রাণ হারাচ্ছে সাধারণ মানুষ। প্রতি সপ্তাহে বিবিসি বাংলায় সাম্প্রতিক বিষয় নিয়ে ফোনইন প্রোগ্রাম অনুষ্ঠিত হয়। এবং এখানে পাঠকরা ফোন করে তাদের মতামত ব্যক্ত করেন।
শনিবার বিবিসি বাংলার প্রবাহ অনুষ্ঠানে প্রচারিত ফোনইন প্রোগ্রামে অনুষ্ঠিত কিছু মতামত আমাদের সময় ডটকমের পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো।
নাটোর থেকে রকিবুল ইসলাম বলেন, শুক্রবার টাঙ্গাইলে ছেলের সামনে মাকে বিবস্ত্র করে দুর্বৃত্তরা ধর্ষণের চেষ্টা করে। তারই প্রতিবাদে টাঙ্গাইলের সাধারণ মানুষ বিক্ষোভ মিছিল করে। কিন্তু পুলিশ যারা এই ঘটনায় জড়িত ছিল তাদের গুলি না করে যারা ন্যায্য অধিকার আদায়ের জন্য আন্দোলন করেছে তাদের উপর গুলি করেছে। এত ক্ষমতা পুলিশ কোথা থেকে পায়। কিন্তু বর্তমান সময়ে পুলিশের কর্মকা- ব্রিটিশদের সাথে তুলনা করা যায়। তখন বাঙালিরা তাদের ন্যায্য অধিকার আদায়ের জন্য আন্দোলন করার কারণে তাদের উপর অত্যাচর করত। তাহলে কি পুলিশ এবং আওয়ামী লীগ সরকার ব্রিটিশদের চেয়েও খারাপ। এ থেকে কী আমাদের পরিত্রাণ পাওয়ার উপায় নেই!
লালমনিরহাট থেকে মনিরুল ইসলাম বলেন, আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থা খুবই অধপতনের দিকে ধাবিত হচ্ছে। কারণ শুক্রবার অনুষ্ঠিত মেডিকেল ও ডেন্টাল পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়া আমাদের জন্য খুবই দুঃখজনক এবং লজ্জাকর। এছাড়াও পিএসসি থেকে শুরু করে জেএসসি, এসএসসি ভর্তি পরীক্ষার মতো গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নপত্র ফাঁস এই সরকারের আমল ছাড়া অন্য সকারের আমলে দেখা যায়নি। আসলে সরকার প্রশ্নপত্র ফাঁসের মহোৎসবে মেতে উঠেছে এটা বলাই বাহুল্য। বিষয়টিতে সরকার প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষভাবে জড়িত। এবং সরকারের আন্তরিকতার ঘাটতি রয়েছে। সুতরাং শিক্ষামন্ত্রীর পদত্যাগ করা উচিত। কারণ এই ধরনের ঘটনা বার বার ঘটছে।
সিলেট থেকে সঞ্জিব ভট্টাচার্য বলেন, গ্যাস, বিদ্যুৎ এবং শিশু নির্যাতনের ঘটনায় ব্যাপকভাবে কোনো আন্দোলন করা হচ্ছে না। তাহলে কি সবাই ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য আন্দোলন করে। বিএনপির পক্ষ থেকেও এনিয়ে কোনো আন্দোলন করা হচ্ছে না। তাহলে তারা ক্ষমতায় গিয়ে করবে কি?
খুলনা থেকে মহিতোষ বিশ্বাস বলেন, বেসরকারি হাইস্কুলে বর্তমানে শিক্ষক নিয়োগের যে পদ্ধতি আছে তা ম্যানেজিং কমিটি বা সভাপতির নেতৃত্বে হয় এবং তারাই শিক্ষক নিয়োগ দেয়। এবং এখানে সরকারের পক্ষ থেকে ডিজি মহোদয়ের প্রতিনিধি থাকেন। কিন্তু এই নিয়োগ কমিটি শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া খুব স্বচ্ছ হয় না বলে আমার সন্দেহ হয়। কারণ তাদের নিয়োগে স্বজনপ্রীতি রয়েছে বলে মেধাবীরা শিক্ষকতা পেশায় আসার সুযোগ পায় না। ফলে সবচেয়ে বড় বেসরকারি হাইস্কুলের শিক্ষা দানের খাত বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।
চট্টগ্রাম থেকে মো. হালিম বলেন, বর্তমানে আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমেছে। কিন্তু বাংলাদেশের সরকার জ্বালানি তেলের দাম না কমিয়ে বরং গ্যাস বিদ্যুতের দাম বাড়িয়েছে। কিন্তু আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসায় আগে সাধারণ মানুষকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল যে তারা ক্ষমতায় সবকিছুর দাম নিয়ন্ত্রণে রাখবে। কিন্তু তারা সেই প্রতিশ্রুতি পালন করছে না।
বরিশাল থেকে জুলফিকার আলী বলেন, শুক্রবার ডেন্টাল ও মেডিকেল কলেজের পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়ায় আমি স্বাস্থ্যমন্ত্রী নাসিমের কাছে আবেদন করছি যাতে পরীক্ষাটি বাতিল করা হয়। কারণ পরীক্ষা বাতিল করা না হলে মেধাবী শিক্ষার্থীরা এ সুবিধা থেকে বঞ্চিত হবে। এবং পরীক্ষা বাতিল করে নতুনভাবে পরীক্ষা নেওয়ার জোর দাবি করছি।
মানিকগঞ্জ থেকে শামীম হাসান বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার লন্ডন সফরের কারণে বাংলাদেশের কিছু হলুদ মিডিয়া বলাবলি করছে যে, সরকারের সাথে খালেদা জিয়ার সমঝোতা হতে পারে। কিন্তু আমি মনে করি এটি হলুদ মিডিয়ার একটি গুজব। কারণ এ খবরের মাধ্যমে বিএনপিকে ধমিয়ে রাখার অপচেষ্টা চলছে।

[gs-fb-comments]
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com